মেইন ম্যেনু

শাবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণা :

ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের নিহত ১

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন প্রক্টর হিমাদ্রি শেখরসহ অন্তত ২০ জন।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহততের নাম সুমন। তিনি সিলেট ইন্টারন্যাশন্যাল ইউনিভার্সিটির ছাত্র।

এদিকে এ ঘটনার পরপরই অনিষ্টিকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার বিকাল চারটার মধ্যে ছাত্রদের এবং ছাত্রীদের শুক্রবার সকাল ৯টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা শামসুজ্জামান চৌধুরী সুমন সমর্থিত শাবি ছাত্রলীগের কমিটির নেতাকর্মীদের সঙ্গে অঞ্জন-উত্তম গ্রুপের নেতাকর্মীদের এ সংঘর্ষ হয়।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ওমর ফারুক বলেন, “গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সুমনকে হাসপাতালে আনা হলে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।”

সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ক্যাম্পাসে অনুপস্থিত বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জীবন চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান হকের সমর্থক নেতাকর্মীরা বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসে ঢোকে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি ও অ্যাকাডেমিক ভবন এবং শাহপরাণ হলে ভাঙচুর চালায়।

এক পর্যায়ে শাহপরাণ, বঙ্গবন্ধু ও সৈয়দ মুজতবা আলী হলের নিয়ন্ত্রণে থাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসভাপতি অঞ্জন রায় ও মিসবাহ রেদওয়ানের সমর্থকদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ শুরু হয়।
এ সময় দুই পক্ষই পরস্পরের দিকে গুলি ছেড়ে এবং বোমাবাজি করে বলে ক্যাম্পাসে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা জানান। দুই পক্ষেরই বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হন।

সংঘর্ষে আহতদের অ্যাম্বুলেন্সে করে শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।
জালালাবাদ থানার ওসি আক্তার হোসেন বলেন, “সংঘর্ষ শুরুর পর ক্যাম্পাসে বাড়তি পুলিশ আনা হয়েছে।”






মন্তব্য চালু নেই