মেইন ম্যেনু

ছাত্রদল কর্মীরাই ভেঙে দিল জিয়ার ম্যুরাল

ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটির পদপ্রাপ্ত ও পদবঞ্চিত নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে কে বা কারা বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান ফটকে থাকা দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ম্যুরালটি ভেঙে ফেলেছেন।

রোববার দুপুর ২টার দিকে পদপ্রাপ্ত ও পদবঞ্চিত নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ শুরু হয়। ৩টা পর্যন্ত থেমে থেমে কয়েক দফা সংঘর্ষে জড়ায় এ দুপক্ষ। এ সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ভেঙে ফেলা হয় ম্যুরালটি।

সংঘর্ষে চারজন আহত হন। চিকিৎসার জন্য তাদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

পদবঞ্চিত নেতারা দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে বলেছেন, এ্যানী-টুকুর লোকেরা জিয়াউর রহমানের ম্যুরাল ভেঙেছেন।

কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষ চলাকালে রুহুল কবির পদবঞ্চিত নেতাদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা এখান থেকে চলে যান।’

পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা এ সময় রিজভীকে বলেন, ‘এ মুহূর্তে কমিটি বাতিলের ঘোষণা দিতে হবে। তাহলে আমরা চলে যাব।’

রিজভী তখন বলেন, আমাকে তোমাকে মারাও। প্রতিউত্তরে ওই নেতাকর্মীরা বলেন, আপনি বিএনপির একজন ত্যাগী নেতা। আপনার প্রতি আমাদের ক্ষোভ নাই। সরকারের দালাল এ্যানী-টুকুর ক্ষমা নেই। জিয়াউর রহমানের ম্যুরাল ভেঙে গেছে এ্যানী-টুকুর লোকেরা।

বিক্ষোভকারী এ কে এম মোশারফ হোসেন বলেন, এ্যানি-টুকুর লোকজন ম্যুরাল ভেঙেছে। আমরা লাঠি হাতে তা প্রতিহত করেছি। এ লাঠি একদিন আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই