মেইন ম্যেনু

ছাত্রদলে বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা

বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নতুন কমিটি ও বিদ্রোহীদের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা।

 

মঙ্গলবার রাতে রাজিব আহসান-আকরামুল হাসানের নেতৃত্বে কমিটি ঘোষণার পর থেকেই পদবঞ্চিতরা কমিটি প্রত্যাখ্যান করে বিদ্রোহ, বিক্ষোভ দেখিয়ে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় শনিবারও তারা নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেছেন। ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি এবং সহ-ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর কুশপুত্তলিকা দাহ করেছেন তারা।

 

বিক্ষোভের একপর্যায়ে নতুন ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবিতে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা দিয়েছেন পদবঞ্চিত নেতারা। শনিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে তারা বিক্ষোভ করেন।

 

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রাক্তন সহ-সভাপতি আবু সাইদের নেতৃত্বে তিন শতাধিক নেতা-কর্মী বিক্ষোভ শুরু করেন। তারা বিএনপি অফিসের চতুর্থ তলার ছাত্রদলের কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন। ছাত্রদলের নতুন কমিটিতে স্থান পেয়েছেন অথচ কাঙ্ক্ষিত পদ পাননি এমন নেতারাও বিক্ষোভে যোগ দিয়েছেন। বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা এ কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়ে ‘এ্যানি-টুকুর কমিটি মানি না, এরা সরকারের দালাল’ বলে স্লোগান দেন।

 

এদিকে ছাত্রদলের সদ্যঘোষিত কমিটি সূত্রে জানা গেছে, তারা যেকোনো সময় তালা ভেঙ্গে কার্যালয়ে প্রবেশ করবেন। এ খবরে নয়াপল্টনে লাঠি মিছিল করেছেন পদবঞ্চিতরা। এ অবস্থায় দুই পক্ষই মুখোমুখি থাকায় বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

 

ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী জানান, ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতা-কর্মীরা কার্যালয়ে আসবেন। এ অবস্থায় তিনিও বড় সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন।

 

নতুন কমিটিকে বিলুপ্ত করে ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাদের দিয়ে পুনরায় কমিটি গঠন না করা পর্যন্ত বিক্ষোভ অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দেন পদবঞ্চিতরা। এর আগে বুধবার, বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন পদবঞ্চিত ছাত্রদল নেতারা। কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণও ঘটানো হয়।

 

এদিকে বিক্ষোভ চলাকালে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে ২০ মিনিট অবরুদ্ধ থাকার পর মুক্ত হন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নতুন ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবিতে শনিবার দুপুর সোয়া ১টা থেকে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখেন ছাত্রদলের সদ্যঘোষিত কমিটির পদবঞ্চিত নেতারা।

 

দুপুরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রবেশ করলে পদবঞ্চিত বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা স্লোগান দিতে থাকেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম ভেতরে প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে তারা কার্যালয়ে নিচের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন। এতে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন মির্জা আলমগীর। এর ২০ মিনিট পর ফখরুল নিচে নেমে এলে পদবঞ্চিতরা ফটকের তালা খুলে দেন।

 

পরে দলের যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ কার্যালয়ে এলে সংগঠনের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা তাকে ঘিরে রেখে ক্ষোভ জানান। বেলা পৌনে ৩টার দিকে ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি এবং সহ-ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর কুশপুত্তলিকা দাহ করেন পদবঞ্চিতরা।

 

রাজিব আহসানকে সভাপতি ও মো. আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে গত মঙ্গলবার রাতে ২০১ সদস্যবিশিষ্ট ছাত্রদলের আংশিক নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ কমিটি ঘোষণা করার পর থেকেই পদবঞ্চিতরা কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ করে আসছেন।






মন্তব্য চালু নেই