মেইন ম্যেনু

চায়ের দোকান থেকে ডেকে নিয়ে দুই ব্যবসায়ীকে হত্যা

মেহেরপুরের সোনাপুর গ্রামের দুই ব্যবসায়ীকে গলাকেটে হত্যা করেছে অপহরণকারীরা। চাঁদা পরিশোধ না করায় তাদের হত্যা করা হয়েছে বলে জানায় পরিবার। রোববার রাতে গ্রামের একটি চায়ের দোকান থেকে তাদেরকে অপহরণ করা হয়। সোমবার দুপুরে গ্রামের একটি মাঠ থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতরা হলেন সদর উপজেলার সোনাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুল মজিদ (৫৫) ও একই গ্রামের তাফছুদ্দীনের ছেলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ী আসাদুল ইসলাম (৫০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাত পৌনে এগারটার দিকে গ্রামের মজনু মিয়ার চায়ের দোকানে চা পান করছিলেন আব্দুল মজিদ ও আসাদুল ইসলামসহ আরো কয়েকজন। এ সময় ১০/১২ জন অস্ত্রধারী তাদের তুলে নিয়ে যায়। পরে মজিদ ও আসাদুলের পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনে মুক্তিপণ হিসেবে ১০ লাখ টাকা দাবি করে অপহরণকারীরা। কিন্তু পরিবারের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা সম্ভব হয়নি। এতে করে দুপুরে স্থানীয় কৃষকরা মাঠে কাজ করার সময় একটি তামাক ক্ষেতে তাদের গলাকাটা মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

মেহেরপুর পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান জানান, যে দু’জন নিহত হয়েছেন তারা চাঁদা দেয়ার মত লোক বলে আমার মনে হয় না। তাই চাঁদা দাবিসহ আনুষঙ্গিক বিষয়গুলো মাথায় রেখে তদন্ত করা হচ্ছে।

নিহত মজিদের ছেলে আশরাফুল ইসলাম জানান, রাতে চায়ের দোকান থেকে আমার বাবাকে এক দল সন্ত্রাসী অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে তারা আমাকে ফোন করে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এ সময় আমি তাদেরকে বলি এত টাকা আমার কাছে নাই, তখন তারা ফোন কেটে দেয়। পরে আবারো ফোন করে বলে আমাদের টাকা দিতে হবে না ওই টাকা দিয়ে তোর বাপের কাফন কিনবি। পরে দুপুরে একটি তামাকের জমিতে দুজনের গলাকাটা লাশ পাওয়া যায়।






মন্তব্য চালু নেই