মেইন ম্যেনু

গ্রেফতারকৃত আহতের ভাইকে রিমান্ডের আবেদন

ঘুমন্ত ৪ জনের উপর আগুন দেয়ার ঘটনায় মামলা দায়ের

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ঘুমন্ত অবস্থায় একই পরিবারের ৪ জনকে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়ার ঘটনায় কলারোয়া থানায় মামলা (নং-০৭) হয়েছে। আহত কলেজ শিক্ষকের বড় ভাই মতিয়ার রহমান বাদী হয়ে বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় মামলাটি দায়ের করেন। এ মামলায় আহত শিক্ষকের মেঝ ভাই আটককৃত তবিবর রহমানকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তার ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশ সূত্র সাংবাদিকদের জানায়, মামলার এফআইআরভূক্তরা হলো- ক্ষতিগ্রস্ত গৃহকর্তা কলারোয়ার শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজের শিক্ষক খলিলুর রহমানের ভাই উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া গ্রামের তবিবর রহমান(৫০), তবিবর রহমানের স্ত্রী মঞ্জুয়ারা বেগম(৪০) ও ছেলে সোহাগ হোসেন(২০) এবং উপজেলার জালালাবাদ গ্রামের মৃত গোলাম সরোয়ারের ছেলে জাহিদ হাসান(২৮) ও সাতক্ষীরা সদর থানার কাথন্ডা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে সবুজ হোসেন(২৫)। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে আরও কয়েকজনকে। সূত্র জানায়, দুই ভাইয়ের মধ্যে অর্থাৎ আটককৃত তবিবর রহমানের সাথে কলেজ শিক্ষক খলিলুর রহমানের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। সেকারণে এ ঘটনায় তবিবর অন্যতম সন্দেহভাজন ব্যক্তি। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) শেখ শফিকুর রহমান জানান, আটককৃত তবিবর রহমান প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ভাই খলিলুর রহমানের সাথে বিরোধের বিষয়টি তেমনভাবে স্বীকার করেনি। তবে রিমান্ডে নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করা যাবে বলে তিনি মনে করেন। বিজ্ঞ আদালতে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। মামলার অন্য আসামিদের আটকের জন্য জোর পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে জানা গেছে। এদিকে দাহ্য পদার্থে গুরুতর দগ্ধ মা ও তাঁর ২ ছেলে বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। সেখান থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, ৩ জনেরই শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক পর্যায়ে রয়েছে। আগুনে সত্তর ভাগের মতো ঝলসে যাওয়ায় চিকিৎসায় তেমন কোনো উন্নতি হয়নি। বর্বরোচিত দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন সংসদ সদস্য এ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্ট,ু লাঙ্গলঝাড়া ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক এমএ কালামসহ উপজেলা কলেজ শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ। উল্লেখ্য, বৃহষ্পতিবার গভীর রাতে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে থাকা উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া গ্রামের মৃত জামাল সরদারের পুত্র শেখ আমানুল¬াহ ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক খলিলুর রহমান (৪২), তার স্ত্রী শাহানারা খাতুন (৩৪), দুই শিশু পুত্র আসাদুজ্জামান (১১) ও তামিম হোসেন (৬) এর উপর জানালা দিয়ে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় দূর্বৃত্তরা। আগুনের লেলিহান শিখায় স্ত্রী ও দুই পুত্রের শরীরের সিংহভাগ ঝলসে গেছে। গুরুতর আহত হয়েছেন কলেজ শিক্ষকও। বৃহষ্পতিবার বিকেলেই সাতক্ষীরা থেকে ডিবি পুলিশ ও কলারোয়া থানা পুলিশের যৌথদল আহত অধ্যাপক খলিলুর রহমানের মেঝ ভাই তবিবুর রহমান (৫০) কে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আটক করেছেন। ওসি শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম জানান, ঘটনার সাথে জড়িত কোন দোষীই রেহাই পাবে না। অধ্যাপক খলিলুর রহমান কলারোয়া শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজের শিক্ষক ও লাঙ্গলঝাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ.সভাপতি।

কলেজ শিক্ষক পরিবারের ওপর বর্বর হামলায় শিক্ষক সমাজের নিন্দা জ্ঞাপন:
কলারোয়া শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক খলিলুর রহমানের পরিবারের ওপর বর্বর হামলার ঘটনায় নিন্দা ও দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে উপজেলা কলেজ শিক্ষক সমিতি ও মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দসহ শিক্ষক মন্ডলী। বিবৃতিদাতারা হলেন উপজেলা কলেজ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক আবুল খায়ের, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক আমানুল্লাহ আমান, শিক্ষক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ, প্রধান শিক্ষক আকতারুজ্জামান, আব্দুর রব, রুহুল আমিন, সাংবাদিক রাশেদুল হাসান কামরুল, হরিসাধন ঘোষ, নূরুল ইসলাম, একেএম ফজলুল করিম, ইবাদুল হক, আখতার আসাদুজ্জামান চান্দু, আজহারুল ইসলাম, শামছুল হক, রফিকুল ইসলাম, আব্দুর রহিম, জাহাঙ্গীর হোসেন, কার্ত্তিক চন্দ্র দত্ত, ঘোষ সাধন কুমার, আব্দুল আলিম, লুৎফর রহমান, সহিদুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম, আব্দুল খালেক, মুজিবর রহমান, ইমদাদুল হক, আকতার হোসেন, অমলেন্দু কুমার, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জিএম আমিনুল ইসলাম, সহকারী প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান আসাদ, আবদুর রকীব, বদরুজ্জামান, সাংবাদিক শেখ জুলফিকারুজ্জামান জিল্লু, সাংবাদিক প্রভাষক আরিফ মাহমুদ, শফিকুল ইসলামসহ সকল প্রতিষ্ঠান প্রধান ও শিক্ষকমন্ডলী। উল্লেখ্য, বৃহষ্পতিবার গভীর রাতে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে থাকা উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া গ্রামের মৃত জামাল সরদারের পুত্র শেখ আমানুল¬াহ ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক খলিলুর রহমান (৪২), তার স্ত্রী শাহানারা খাতুন (৩৪), দুই শিশু পুত্র ৭ম শ্রেনি পড়–য়া আসাদুজ্জামান (১২) ও প্রথম শ্রেণি পড়–য়া তামিম হোসেন (৬) এর উপর জানালা দিয়ে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। বর্তমানে তারা আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই