মেইন ম্যেনু

ঘাড় নেড়ে সায় দিলে ফ্লোরে নামে আলিয়া

আলিয়া ভাটের প্রেমে মজেছেন সিদ্ধার্থ মালহোত্রা এমন কথা শোনা গেলেও মুখ খুলেননি তারা। ঘনিষ্ঠদের চোখে ধরা পড়ছে এমন অনেক কিছুই।

দুজনকেই মাঝেমধ্যে একসঙ্গে ঘুরতে দেখা যায়, শোনা যায়, তারা নাকি একসঙ্গে প্রচুর সময় কাটান৷ কিন্ত্ত তারপরও কেউ-ই একেবারে নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।

আলিয়া বা সিদ্ধার্থ কেউ-ই এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কোনো কথা বলছেন না৷ কিন্ত্ত কী কী থেকে আন্দাজ হতে পারে, তারা প্রেম করছেন? ঘটনাটি হলো ‘স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার’-এর পর থেকে শোনা গেছে বরুণ ধাওয়ান আর আলিয়া ভাট প্রেম করছেন৷

তারপর একদিন শোনা যায়, তাদের সেই প্রেমটা নাকি আর নেই৷ তারপরেই শোনা যায়, ‘স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার’-এর আর এক তারকা সিদ্ধার্থের নাকি বেশ ঘনিষ্ঠ বন্ধু হয়ে উঠেছেন আলিয়া৷

তাই নিয়েই সিদ্ধার্থের সঙ্গে সম্পর্ক বেশ খারাপ হয়ে গেছে বরুণের৷ তবে এ সবই অনেক পুরনো কথা৷ তারপর থেকে অনেক জলই গড়িয়েছে৷ মুম্বাইয়ে একা থাকেন সিদ্ধার্থ৷ অনেক নারীর সঙ্গে তার সম্পর্কের গুজব শোনা গিয়েছিল৷

কিন্ত্ত শেষ পর্যন্ত আলিয়ার সঙ্গেই তার সবচেয়ে বেশি ঘনিষ্ঠতা তা টের পাওয়া গেছে। আলিয়ার বাড়িতে তিনি মাঝে মধ্যেই আসেন৷ সেখানে থেকেও যান মাঝে মাঝেই৷

ভাট-পরিবারের ঘনিষ্ঠ একজন জানিয়েছেন, ‘আলিয়া ওর বাবা-মা আর বোনের সঙ্গে থাকে৷ সিদ্ধার্থ ওদের বাড়িতে এসে শুধুমাত্র আলিয়ার সঙ্গে সময় কাটায়, এমনটা নয়৷ বরং গোটা পরিবারের সঙ্গেই সিদ্ধার্থের সম্পর্ক খুব ভালো৷

তিনি জানিয়েছেন, সিদ্ধার্থ সবার সঙ্গেই আড্ডা দেয়৷ তাহলে কি সত্যিই কিছু আছে? আলিয়াই বা কিছু বলছেন না কেন এ নিয়ে? ঘনিষ্ঠ ব্যক্তির মতে, ‘যতো দিন না আলিয়া পুরোপুরি নিশ্চিত হচ্ছেন সিদ্ধার্থের সঙ্গে নিজের ভবিষ্যত্‍ জোড়ার বিষয়ে, ততোদিন ও এ নিয়ে কিছু বলবে না৷’

তবে এর মধ্যে এমন এক ঘটনা ঘটেছে, যাতে এই প্রেমের কথাটা কয়েকজনের কাছে আরো পাকাপোক্ত হয়েছে৷ করন জোহরের ‘কাপুর অ্যান্ড সানস সিন্স ১৯২১’ ছবির শ্যুটিং-এ একটি গানের দৃশ্যে আলিয়াকে তুলনায় ছোটো একটি পোশাক পরতে হয়৷

ক্যামেরা রোলের আগে আলিয়া সিদ্ধার্থে দিকে জিজ্ঞাসু চোখে তাকায়৷ সিদ্ধার্থ ঘাড় নেড়ে সায় দিলে, তবেই আলিয়া নিশ্চিন্তে ফ্লোরে নামে৷ প্রেমের যে সম্ভাবনা ভালোই তা বোঝাই যায়৷






মন্তব্য চালু নেই