মেইন ম্যেনু

কেক খাওয়ার আগে সাবধান! কারণ জেনে নিন..

এন্তারসে কেক খাওয়ার প্ল্যান পাকা, পঁচিশে ডিসেম্বর। কিন্তু সে কেক কীভাবে তৈরি হচ্ছে জানেন কি? আমরা জানি। জানি কারণ, কেক কারখানার অন্দরমহলে হানা দিয়েছি আমরাই। খবর জিনিউজের।

সেখানে যা চলছে-যেভাবে চলছে দেখলে, ঘিনঘিনে শব্দও নির্ঘাত লজ্জায় মুখ লুকোবে! স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই। শহরের বেকারিগুলিতে, চরম অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে কেক। বড়দিনে বাজার মাত করছে সেটাই। পৌছে যাচ্ছে ঘরে ঘরে। বাড়ছে রোগ-ভোগের আশঙ্কা।

পাতে পড়ারও অযোগ্য। কিন্তু সেটাই মেক-আপের পর এমন প্রোডাক্ট, যা থেকে চোখ ফেরানো দায়। পাতে নেওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি। তবে এর সঙ্গেই কিন্তু পেটে যাচ্ছে এমন সব মারাত্মক জিনিস, যা জানলে চোখ কপালে উঠবে।

ডিমের খোলার রং লালচে। বুঝতেই পারছেন, এটা আর পাঁচটা ডিমের মতো নয় যা বাজার থেকে কেনা হয়। লাল ডিম হল সেগুলি, যা থেকে আর বাচ্চা হবে না, মূলত বাতিল, পচা ডিম। লাল ডিম আকারেও বেশ বড়, দামে সস্তা এতে হাইড্রোজেন সালফাইডের পচা দুর্গন্ধ ঢাকতে ব্যবহার করা হয় নানা সুগন্ধী।

একের পর এক সুগন্ধীর বোতল খালি করে দেওয়া হচ্ছে কেক-মিশ্রণে। এমনটাই হয়। কিন্তু বিপদ লুকিয়ে এখানেও। কেক তৈরিতে মূলত যে সুগন্ধী ফ্লেভার ব্যবহার করা হয় তা হল ডাই-কারকিউরাম। এটি ক্লাস টু কারসিনোজেনিক অর্থাত্‍ ক্যানসারের কারণ হতে পারে।

কেকে ব্যবহৃত পচা ডিমে, হাইড্রোজেন সালফাইডের গন্ধ ঢাকতে ব্যবহার হয় কপার সালফেড (তুঁতে), লেড সালফেড (সিসা), লেড ক্রোমেট (একধরনের রঙ)। বেকিং পাউডার বা বিভিন্ন ফ্লেভারের সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হয় তুঁতে, সীসা বা অন্যান্য জিনিস। হাইড্রোজেন সালফাইডকে লেড অথবা কপার সালফাইডে রূপান্তরিত করে দেওয়া হয় এর মাধ্যমে এটি একধরণের ধাতব পদার্থ যা কিডনির ক্ষতি করতে পারে।

কেক-মিশ্রণের আরেক উপকরণ ক্যালসিয়াম প্রোপিয়োনেট। ফাঙ্গাস বা ছত্রাক যাতে না ধরে, সেজন্যই এর ব্যবহার। ক্যালসিয়াম প্রোপিয়োনেট ঠিক পরিমাণে না দেওয়া হলে, শরীরের মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে। কেক তৈরির জন্য অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল সমেত কন্টেনার ভাটির মধ্যে ঢোকানোয় বাড়ছে আরও বিপদ। কেকে মিশে যাচ্ছে অতিরিক্ত অ্যালুমিনিয়াম। বাড়তি পরিমাণ অ্যালুমিনিয়াম শরীরে গেলে তা স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষতি করতে পারে।

প্রচুর ডিমের ব্যবহার কেক তৈরিতে। এর মধ্যেই মিশে থাকে ফাটা ডিমও। কেক তৈরিতে ফাটা ডিমের ব্যবহার বিপদের বড় কারণ। ফাটা ডিমে সালমোলেনা টাইফি নামে একধরনের ব্যাকটেরিয়া ঢুকে যায়। এই ব্যাকটেরিয়া টাইফয়েড, ব্রঙ্কো নিমোনিয়ার মতো রোগের কারণ হতে পারে। ফলে বুঝতেই পারছেন, সাধ করে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া এই কেকের মধ্যেও কিন্তু লুকিয়ে হাজার বিপদ। অতএব, সাবধান।






মন্তব্য চালু নেই