মেইন ম্যেনু

কাঁদলেন হিউজের ‘ঘাতক’ বোলার

শিন অ্যাবট কি নিজেকে ‘অপরাধী’ ভাবছেন?

২২ বছরের তরুণ এ ফাস্ট বোলারের এক বিষাক্ত বাউন্সারেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন ফিল হিউজ। বিয়োগান্তোক ওই ঘটনার পর অন্যরা দোষ না দিলেও নিজেই হয়তো অনুতাপের আগুনে পুড়ছেন অ্যাবট। হয়তোবা ঠিক ওই কারণেই সেন্ট ভিনসেন্ট হাসপাতালে হিউজকে দেখতে গিয়ে সতীর্থদের সামনে চাপা কান্নায় চোখের জল ফেলেন নিউ সাউথ ওয়েলশ পেসার।

অবশ্য আধুনিক ক্রিকেটে বাউন্সারকে বোলারের প্রধানতম একটি অনুষঙ্গ হিসেবেই ভাবা হয়। বিশেষত কোন ফাস্ট বোলারের জন্য। সুতরাং সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শেফিল্ড শিল্ডের খেলায় অ্যাবটের বাউন্সার মারাটাকে কেউ দোষ হিসেবে দেখছেন না। বরং ২২ বছর বয়সী তরুণের পাশে দাঁড়াচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা। এমনকি হিউজের পরিবারও।

হিউজ যে বোলারের বাউন্সারে আঘাত পান সেই অ্যাবটের মানসিক অবস্থাকে বিবেচনায় নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান চিকিৎসক পিটার ব্রুকনার বলেন, ‘অ্যাবটসহ ঘটনার দিনে যারা মাঠে উপস্থিত ছিলেন তাদের জন্য এটা খুবই বেদনাতুর একটি ঘটনা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ও নিউ সাউথ ওয়েলশ ক্রিকেট অ্যাবটের পাশেই আছে।’

বুধবার অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্কও শিন অ্যাবটকে সমর্থন দেন। হাসপাতালে সতীর্থকে দেখতে এসে তরুণ পেসারের সাথে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান তিনি। তাছাড়া হিউজের বোনও অ্যাবটকে সমর্থন করেন।






মন্তব্য চালু নেই