মেইন ম্যেনু

কলারোয়া সীমান্তে পাচারের কবল থেকে উদ্ধার হওয়া শিশুকে পিতার কাছে হস্তান্তর

কলারোয়া সীমান্ত দিয়ে পাচারকালে উদ্ধার হওয়া এক শিশুকে তার পিতার হাতে হস্তান্তর করেছে বিজিবি। উদ্ধার হওয়া শিশু নেত্রকোনা জেলার কমলাকান্দার উপজেলার ইয়ারপুর গ্রামের আল-আমীন (১২)কে তার পিতার চাঁনমিয়ার কাছে হস্তান্তর করা হয়। বুধবার সকালে কলারোয়া উপজেলার কাঁকডাঙ্গা বিওপি ক্যাম্পে উদ্ধার হওয়া শিশুকে তার পিতার কছে হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন কাঁকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের সুবেদার নূরুল ইসলাম, হাবিলদার ইসরাইল হোসেন, উদ্ধার হওয়া শিশুটির মামা হাবিব মিয়াসহ অন্যরা। শিশুটি নেত্রকোনার একটি মাদরাসা ছাত্র ছিল বলে তার স্বজনরা জানান। গত মঙ্গলবার সকালে কলারোয়া উপজেলার কেঁড়াগাছি সীমান্তের কাঁকডাঙ্গা বিওপির ক্যাম্পের সামনে থেকে ভারতে পাচারকালে আল-আমীনকে বিজিবি সদস্যরা উদ্ধার করে। এসময় আটক পাচারকারী লালন মতাদর্শী প্রতারক ফকির হেলাল উদ্দীন (৬৫) কে বিজিবি আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। উল্লে¬খ্য, গত ২দিন আগে ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশনে শিশু আল-আমীনের সাথে পরিচয় হয় প্রতারক হেলাল উদ্দীনের। বিভিন্ন কথার এক পর্যায়ে হেলালউদ্দীনকে শিশু আল-আমীন জানান যে, ৩ মাস আগে সে সৎ-মায়ের দ্বারা বিতাড়িত হয়ে কাজের সন্ধানে ঢাকায় এসে একটি হোটেলে কাজ নেয়। কিন্তু সেখানে কোন বেতন না দেয়ায় সে ‘কুলি’র কাজ করার জন্য রেল স্টেশনে এসেছে। এসময় প্রতারক হেলাল উদ্দীন নিজেকে লালন ফকিরের মতাদর্শী পরিচয় দিয়ে কুষ্টিয়ায় লালনের দরগায় গিয়ে ভালো রোজগারের ব্যবস্থা করে দেবেন বলে আশ্বাস দেন। প্রতারক হেলাল কুষ্টিয়া যাওয়ার কথা বলে শিশু আল-আমীনকে নিয়ে সোমবার রাতে কলারোয়া এসে হাইস্কুলের বারান্দায় ঘুমিয়ে পড়েন। পরে মঙ্গলবার সকালে ভ্যানযোগে সেখান থেকে কলারোয়ার কেঁড়াগাছির গাড়াখালী সীমান্তে নিয়ে যাওয়ার সময় কাঁকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের সুবেদার নুরুল ইসলাম সন্দেহবশত: তাদেরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এসময় পাচারের বিষয়টি পরিষ্কার হলে প্রতারক হেলালউদ্দীনকে আটক ও আল-আমীনকে উদ্ধার করে বিজিবি। পরে পাচারকারীকে আসামী করে কলারোয়া থানায় একটি মামলা দায়ের হয়।
ইভটিজিং-এর প্রতিবাদ করায় কলারোয়ায় বখাটেদের হামলায় এক ব্যক্তি আহত
আরিফ মাহমুদ, কলারোয়া (সাতক্ষীরা):
ইভটিজিং-এর প্রতিবাদ করায় কলারোয়ায় বখাটেদের হামলায় আহত হয়েছে এক ব্যক্তি। বুধবার দুপুরের দিকে পৌরসভাধীন মুরারিকাটিতে এ ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। সূত্রটি জানায়, মুরারীকাটি গ্রামের আবু তালেবের কলেজ পড়–য়া কন্যা (২০) কে রাস্তায় স্থানীয় কতিপয় যুবকরা উত্তক্ত করলে তার প্রতিবাদ করেন মুরারিকাটি গ্রামের মৃত সৈয়দ সুলতান হায়দারের পুত্র সৈয়দ বুলবুল হায়দার (৪০)। এসময় ওই যুবকদের হাতে আহত হয়ে বুলবুল হায়দার কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি হয় বলে জানা গেছে।

 

কলারোয়ায় যৌন উত্তেজক ট্যাবলেটসহ বিভিন্ন পণ্য উদ্ধার
কলারোয়া সীমান্ত এলাকা থেকে ভারতীয় জিরা, মদ ও যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে বিজিবি। তবে এসময় কেউ আটক হয়নি। বিজিবি সূত্র জানায়, কলারোয়া উপজেলার মাদরা বিওপির বিজিবি সদস্যরা বুধবার সকালে সীমান্তবর্তী কোমরপুর গ্রাম থেকে ভারতীয় ৩১৫ কেজি জিরা উদ্ধার করেন। যার আনুমানিক মূল্য ১লাখ ২৬হাজার টাকা। অপরদিকে, চান্দুড়িয়া বিওপির বিজিবি সদস্যরা মঙ্গলবার দিবাগত রাতে গোয়ালপাড়া গ্রাম থেকে ২০ বোতল পালস মদ ও ১ হাজার পিস ‘ডাবল হর্স পাওয়ার’ ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে। যার আনুমানিক মূল্য ১ লাখ টাকা।

 

কলারোয়ায় সুষ্ঠুভাবে জেএসসি’র ইংরেজি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত
কলারোয়ায় শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু পরিবেশের মধ্য দিয়ে বুধবার জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষার ইংরেজি প্রথম পত্র অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলারোয়া জিকেএমকে পাইলট মডেল হাইস্কুল, কলারোয়া শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজ ও কলারোয়া গার্লস পাইলট হাইস্কুল পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন সাতক্ষীরার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সানজিদা বেগম। এছাড়া ৪টি জেএসসি ও একটি মাদরাসা কেন্দ্রে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা নেয়ার জন্য ইউএনও অনুপ কুমার তালুকদার, মাধ্য. শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল হামিদসহ একাধিক সরকারি কর্মকর্তা দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কেন্দ্রে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সচেষ্ট আছেন থানার ওসি শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম ও ওসি (তদন্ত) শেখ সফিকুর রহমান।

 

 






মন্তব্য চালু নেই