মেইন ম্যেনু

ওবামার বিদেশ নীতি তোপের মুখে

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার পররাষ্ট্র নীতি নিয়ে সমালোচনা শুরু করেছেন সরকারি ও বিরোধী দলের পার্লামেন্ট সদস্যরা। তার ইরাক, সিরিয়া, লিবিয়া ও ইউক্রেন নীতি নিয়ে তোপের মুখে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

চলতি সপ্তাহে ইরাক ও সিরিয়ায় প্রভাব বিস্তারকারী জঙ্গি গোষ্ঠি ইসলামি স্টেট প্রসঙ্গে ওবামা এক বিবৃতিতে বলেছিলেন,‘ইসলামি স্টেটের বিরুদ্ধে এখনো আমরা কোনো কৌশল গ্রহণ করেনি।’ রোববার এ নিয়ে ওবামার কঠোর সমালোচনা করেন রিপাবলিকান দলের সদস্যরা।

সরকারি দল ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রভাবশালী নেতারাও ওবামার পররাষ্ট্র নীতির সমালোচনা শুরু করেছেন। তাদের অভিযোগ, ওবামা তার পররাষ্ট্র নীতিতে সিরিয়াকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। তারা রাশিয়াকে ঠেকাতে ইউক্রেনে সহায়তা বাড়ানোর জন্য প্রেসিডেন্টের প্রতি পরামর্শ দিয়েছেন। প্রভাবশালী ডেমোক্রেট নেতা এডাম স্মিথ সিবিএস টেলিভিশনে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন,‘ইউক্রেন সরকারের প্রতি আমাদের সমর্থন আরো জোরদার করা উচিত। আমি মনে করি বহিরাগতদের প্রতিহত করার একটি সক্ষম যুদ্ধে আমাদের সহযোগিতা আরো বাড়ানো প্রয়োজন।

লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলিতে মার্কিন দূতাবাসে হামলার পর মার্কিন প্রশাসনের বিরুদ্ধে এসব সমালোচনা শুরু হয়েছে।

ওবামার সমালোচনা করতে গিয়ে সিনেটের ইন্টেলিজেন্স কমিটির চেয়ারম্যান এবং ডেমোক্রেটিক সদস্য ডিয়ানে ফিনস্টেইন বলেছেন,‘আমি প্রেসিডেন্ট সম্পর্কে একটি বিষয়ে নিশ্চিত যে তিনি অতিমাত্রায় সচেতন।’

প্রেসিডেন্ট ওবামার বিদেশ নীতির সমালোচনা করে রিপাবলিকান দলের সিনেট সদস্য জন ম্যাককেইন বলেছেন, ইসলামি স্টেটের বিরুদ্ধে অভিযানে আরো বেশি পরিমাণে মার্কিন বিশেষ বাহিনী ব্যবহার করা উচিত। এছাড়া ইরাকের সামরিক বাহিনীর প্রশিক্ষণের জন্য তার আরো উপদেষ্টা নিয়োগ করা দরকার।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই