মেইন ম্যেনু

ওবামার পর আজমির শরিফে চাদর দিলেন মোদি

আজমির শরিফে খাজা মঈনুদ্দিন চিশতির মাজারে চাদর উপহার দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বুধবার মাজারে মোদির পক্ষে এই চাদর চড়ান কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভি।

মাত্র কদিন আগেই আজমির শরীফের জন্য চাদর পাঠিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এক বার্তায় খাজা মঈনুদ্দিন চিশতির বার্ষিক ওরস উপলক্ষে শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন জানিয়েছেন। ওই বার্তায় তিনি বলেছেন, ভারতের মাটি গত হাজার হাজার বছর ধরে যেসব পীর আউলিয়া ও ঋষিদের পদচারণায় সমৃদ্ধ হয়েছে তাদের অন্যতম খাজা মঈনুদ্দিন চিশতি। তার বাণী আজও সমাজে প্রাসঙ্গিক বলে তিনি মন্তব্য করেছেন। এ সময় তিনি ওরসের সাফল্য কামনা করেন।

বুধবার সংখ্যালঘুমন্ত্রী নাকভি প্রধানমন্ত্রীর দেয়া চাদর নিয়ে হেলিকপ্টারে করে ঘুঘরা হেলিপ্যাডে নামেন। সেখানে পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা তাকে স্বাগত জানান। এক বিবৃতিতে মন্ত্রী জানান, ‘প্রধানমন্ত্রী শ্রেষ্ঠ ভারতের সংকল্প নিয়ে কাজ করছেন এবং পৃথিবীতে ভারতের নতুন পরিচিতি লাভ হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা খুশি যে সন্ত্রাসবাদ ব্যর্থ করতে দেশের মুসলিম সমাজ অগ্রণী ভূমিকা রেখে চলেছে।’

চাদর দেয়া শেষে মাজার জিয়ারত করেন মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভি। জিয়ারত শেষে দেশের উন্নতি এবং সফলতার জন্য প্রার্থনা করেন মন্ত্রী ।

বৃহস্পতিবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর পক্ষ থেকে চাদর চড়াবেন সোনিয়ার রাজনৈতিক সচিব আহমেদ প্যাটেল, সচিন পাইলট এবং কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা গুলাম নবী আজাদ। ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও সিনিয়র বিজেপি নেতা অটল বিহারী বাজপেয়ী অবশ্য ১৯৭৭ সাল থেকে প্রতি বছর মাজারে চাদর পাঠিয়ে আসছেন। গত কয়েক বছর ধরে তিনি আর বার্ধক্যজনিত কারণে চলাফেরা করতে না পারলেও তার পক্ষ থেকে আজমীর শরীফে নিয়মিত চাদর পাঠানো হয়ে থাকে।

গত শুক্রবার মঈনুদ্দিন চিশতির মাজারে চাদর উপহার দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। সোমবার ৮০৩তম ওরস উপলক্ষে মাজারের গায়ে লাল জমিনে এম্ব্রোয়েডারি করা চাদরটি চড়ানো হয়েছে। ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড ভার্মা, ডেপুটি চিফ মাইকেল প্লেটিয়ের এবং অন্যান্য কর্মকর্তারা এটি আজমীর শরিফ চিশতী ফাউন্ডেশনের পরিচালক হাজী সৈয়দ সালমান চিশতীর হাতে তুলে দেন।






মন্তব্য চালু নেই