মেইন ম্যেনু

এ কোন রকম পরীক্ষা !

কেউ কি বলতে পারবেন এটা কিসের ছবি? এটা হল গত 20 নভেম্বর জে এস সি পরীক্ষা ইংরেজী 2য় পত্র দিনের। দূর্ভাগ্য আমি নিজেই ছিলাম ঐ হলে। কিন্তু আমার কিছুই করার নাই। যেখানে উপর মহল থেকে গ্রীণ সিগনাল আছে। সকল পরীক্ষাই এ রকম হয়েছে। প্রতিবাদ করেছিলাম আমরা কিন্তু আমির হোসেন নামের এক হেড মাস্টার যে ভাষা ব্যবহার করল তাতে বাচ্চাদের (উজ্জল ভবিষ্যত?!!!!) কামনা করতে করতে নিরবে হজম করলাম।

দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কোথায় গেছে তা শিক্ষামন্ত্রীই ভালো বলতে পারবে। আমরা যেটা দেখলাম তা হল আগে ছাত্ররা নকল নিয়ে আসত এখন তাদের স্কুলের শিক্ষকেরা নকল নিয়ে আসে। প্রতিটি পরীক্ষা তারা নৈর্ব্যক্তিক বলে এভাবে যে “এই চুপ সবাই লেখ এক এর তিন, দুই এর চার” ইত্যাদি। শুনেছি তারা ছাত্রদের থেকে নকলে সহযোগিতার জন্য প্রত্যেকের কাছ থেকে 100 টাকা করে নিয়েছে। আর আমরা সাড়ে চর ঘন্টা সময় দিয়ে পেলাম 110 টাকা।  প্রিয় পাঠক, আমি মনে করি এটাই সারা দেশের চিত্র। বিশ্ববিদ্যালয়র ভর্তি পরীক্ষায় তার প্রভাব পড়ছে। ভালো ছাত্রদের বারটা বেজে যাচ্ছে। সচেতন মহলকে প্রতিবাদী হওয়ার আহবান জানাই।

-মাসুদ মোহাম্মদ



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই