মেইন ম্যেনু

একা এগিয়ে যেতে পারবে না ভারত : শাহরিয়ার আলম

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, ‘ভারত ও বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য বিপদে-আপদে উভয় দেশকেই একে অপরের পাশে দাঁড়াতে হবে। বাংলাদেশসহ এই অঞ্চলের দেশগুলোকে বাদ দিয়ে ভারত কখনোই একা এগিয়ে যেতে পারবে না।’

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বাংলাদেশ ইন্ডিয়া সিটিজেন সোসাইটি আয়োজিত ‘বাংলাদেশ ভারত বন্ধুত্ব দুদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের সোপান’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আলোচনা সভায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান, ভারতীয় হাইকমিশনের রাজনীতি ও তথ্য বিষয়ক কাউন্সিলর সুজিত ঘোষ, সংসদ সদস্য নাজমুল হক প্রধান, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. দুর্গা দাস ভট্টাচার্য্, প্রফেসর ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, বিআইসিএস-এর মহাসচিব মনোরঞ্জন ঘোষাল, ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া ও দৈনিক জনতা সম্পাদক আহসানউল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দুই দেশের বন্ধুত্বের ভিত্তি হওয়া উচিৎ হবে বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রামের অভিজ্ঞতা। দুই দেশের বন্ধুত্বের ভিত্তিকে আরও জোরালো করতে রবীন্দ্রনাথের সার্ধশত বছর পালন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতার ৯০ বছর পালন, স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন পালন, উভয় দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক ও প্রতিনিধি বিনিময়, স্থলসীমানা চুক্তির ব্যাপারে প্রটোকল সাক্ষর, বাংলাদেশের উন্নয়নে ভারতের ১ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেওয়া, ভেড়ামারা দিয়ে ভারতের ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আনা, রামপালের কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প, ত্রিপুরা দিয়ে আরও ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি, জলবিদ্যুতের অংশীদারিত্ব, তুলা আমদানির বিধি-নিষেধ প্রত্যাহারসহ নানা বিষয়ে অগ্রগতি হয়েছে।’

মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান ইন্দিরা-মুজিব ২৫ বছরের চুক্তি সম্পর্কে গোলামি চুক্তি আখ্যা দেওয়ার বিষয়ে তীব্র সমালোচনা করে বলেন, ‘বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ফ্রেন্ডশিপ যাতে দৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে থাকে তার জন্য স্বাধীনতার সূচনালগ্নেই চুক্তিটি স্বাক্ষর হয়েছিল। বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে অটুট রাখার জন্য ১২ ধারা সংবলিত এই চুক্তিটির দরকার ছিল।’

ভারতীয় হাইকমিশনের কাউন্সিলর সুজিত ঘোষ বলেন, ‘ভিসা সংক্রান্ত সমস্যা কাটাতে রাজশাহী, চট্টগ্রাম এবং একটি কেন্দ্রে ই-টোকেন ছাড়াই সরাসরি কাগজপত্র জমা দিয়ে ভিসা সংগ্রহ করা যাবে। তবে ট্যুরিস্ট ভিসা ই-টোকেন ছাড়া পাওয়া যাবে না। ভিসা সংক্রান্ত সমস্যা কাটাতে দুদিন আগে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি দুর্গা দাস ভট্টাচার্য বলেন, ‘আমদানি-রফতানির ক্ষেত্রে দুদেশের পণ্যের ট্যাক্স কমালে চোরাচালান বন্ধ হয়ে যাবে।’






মন্তব্য চালু নেই