মেইন ম্যেনু

ইসরাইলি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন

‘১৯৭১ সালে আমাদের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে এই ফিলিস্তিনের জনগণ ও তাদের নেতা ইয়াসির আরাফাত বাংলাদেশকে অকুণ্ঠচিত্তে সমর্থন ব্যক্ত করেছিলেন। আজ সময় এসেছে ফিলিস্তিনি জনগণের এই দায় শোধ করার দাবি ঢাবি শিক্ষার্থীদের’

গাজায় ইসরাইলের বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা অবিলম্বে গাজা ভূখণ্ডে হামলা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। গতকাল সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত মানববন্ধনে তিন শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। কর্মসূচি থেকে ইসরাইলি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়ে পুনরায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করার ঘোষণা দেয়া হয়। ঢাকা ইউনিভার্সিটি জেনারেল স্টুডেন্ট ফোরাম ও ঢাকা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন ফর জাস্টিসের উদ্যোগে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।
উপস্থিত শিক্ষার্থী আমিরুল ইসলাম সাগর বলেন, ১৯৭১ সালে আমাদের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে এই ফিলিস্তিনের জনগণ ও তাদের নেতা ইয়াসির আরাফাত বাংলাদেশকে অকুণ্ঠচিত্তে সমর্থন ব্যক্ত করেছিলেন। আজ সময় এসেছে ফিলিস্তিনি জনগণের এই দায় শোধ করার।
বক্তারা বলেন, গাজায় ভয়াবহ হামলায় প্রতিনিয়ত নারী ও শিশুরা হতাহত হচ্ছেন। তাদের টার্গেট করে হত্যা করছে ইসরাইল। এর চেয়ে অমানবিক ঘটনা আর কিছু হতে পারে না। অথচ বিশ্বের তথাকথিত দণ্ডমুণ্ডের নায়কেরা নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে। হামলা শুরুর সাত দিন হয়ে গেলেও এখনো তা বন্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। জাতিসঙ্ঘের ভূমিকাও এ ক্ষেত্রে খুবই নগণ্য।
তারা আরো বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরাইল। প্রায়ই নিরীহ ফিলিস্তিনিরা শিকার হয় তাদের নৃসংশতার। গত কয়েক দিনে তাদের হাতে প্রয় দেড় শতাধিক নিহত হয়েছেন। একের পর এক মারাণাস্ত্র নিক্ষেপ ও নিষিদ্ধ রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগের মাধ্যমে ফিলিস্তিনিকে পরিণত করা হয়েছে বধ্যভূমিতে। যেখানে মানবতা ভূলুণ্ঠিত।
কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীরা গাজার হামলার বিরুদ্ধে লেখা সংবলিত বিভিন্ন ব্যানার প্লাকার্ড বহন করেন। যেখানে ইসরাইলের হামলার বিরুদ্ধে বিশ্ববাসীর সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানানো হয়। এ ছাড়া হামলা বন্ধের দাবি জানিয়ে বিভিন্ন ধরনের স্লোগানও দেন তারা






মন্তব্য চালু নেই