মেইন ম্যেনু

ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি নাকি জার্মানির প্রতিশোধ

উত্তেজনায় কাঁপছে বেলো হরিজোন্ত। একদিকে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি অন্যদিকে বদলা। সব মিলিয়ে মঙ্গলবার বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে জমজমাট ফুটবল দেখার অপেক্ষায় রয়েছে পুরো ফুটবল দুনিয়া।

ফেরা যাক ২০০২ সালে। সেবার জাপানে ৩০ জুন বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানির মুখোমুখি হয়েছিলো ব্রাজিল। অলিভার কানের দলকে দু’গোলে হারিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয় ব্রাজিল।

এক যুগ পরে বিশ্বকাপের আসরে ফের মুখোমুখি জার্মানি-ব্রাজিল। এবার অবশ্য ফাইনাল নয়, সেমিফাইনালে মুখোমুখি দুই দল। জার্মানি কী পারবে সেই হারের বদলা নিতে? নাকি ব্রাজিল সেই চিরন্তনী সম্মোহনী ফুটবল খেলে জার্মানিকে শোক সাগরে ভাসিয়ে দিয়ে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটাবে ? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদেরকে এখনো ১০ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে।

তবে এমন হাইভোল্টেজ সেমিফাইনাল ম্যাচের মুখোমুখি হওয়ার আগে দুটো দলই চাঙ্গা হয়ে আছেন। দুটো দলই ফুটছে দুরন্ত ফুটবল মেলে ধরার জন্য। জোয়াকিম লো-র দল চাইছে হারের বদলা নিতে৷ আবার লুই ফিলিপ স্কলারির দল চাইছে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে। তবে ব্রাজিল শিবিরে দুশ্চিন্তার মেঘ ছড়িয়ে দিয়েছে নেইমার, সিলভা ছিটকে যাওয়ায়। কলম্বিয়া ম্যাচে আহত হয়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গিয়েছেন ব্রাজিলের সুপারস্টার নেইমার। দলের আক্রমণভাগের প্রধান অস্ত্র নেইমারের পাশাপাশি দলের রক্ষণভাগের সেনাপতি অধিনায়ক থিয়াগো সিলভাকেও পাচ্ছেন না ব্রাজিলের কোচ। দুটো হলুদ কার্ড দেখার জন্য সেমিফাইনালে নেই সিলভা। অধিনায়ককে যাতে খেলতে দেওয়া হয় তার জন্য আবেদনও করেছে ব্রাজিলের কনফেডারেশন৷ কিন্তু ফিফা সেই আবেদন নাকচ করে দেয়। তাই অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবেন লুইস।

এদিকে মঙ্গলবারের ম্যাচে নেইমারের পরিবর্তে মিডফিল্ডার উইলিয়ানকে খেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্কলারি্ যদিও ম্যাচের পরিকল্পনা নিয়ে খোলাসা করে কিছু বলেননি তিনি। কলম্বিয়ার বিরুদ্ধে যে দলটি খেলেছিলো সেই দলে নেইমার ছাড়াও মাঝমাঠে কিছু পরিবর্তন করতে চলেছেন স্কলারি। ছক আর খেলোয়াড় পরিবর্তন করেই ঘরের মাঠে সেমিফাইনালে বাজিমাত করতে চান

ব্রাজিল ঘরের মাঠে খেলবে সেক্ষেত্রে তারা বাড়তি সুবিধা পাবে সন্দেহ নেই। তবে নিজেদের দর্শকদের সামনে খেলাও বাড়তি চাপ বলে মনে করছে ব্রাজিলের টিম ম্যানেজমেন্ট। কোনো অঘটন ঘটলে ওই সমর্থকরাই বিক্ষোভে ফেটে পড়বে তাই সতর্ক স্কোলারি।

তবে ব্রাজিল ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ জেতার আনন্দে মশগুল হোক না কেন, জার্মানি কিন্তু ‘স্কোলারির বাড়া ভাতে ছাই’ দিতে তৈরি হয়ে রয়েছেন৷ বিশ্বকাপের ইতিহাস তাদের দিকে নেই৷ তবুও ব্রাজিলকে ঘরের মাঠে হারিয়ে নতুন ইতিহাস তৈরি করতে চাইছে জোয়াকিম লো-র দল৷ অস্কার, ফ্রেড, ডেভিড লুইজদের পাওয়ার ফুটবল দিয়েই মাত করতে চায় জার্মানি।

মঙ্গলবারের ম্যাচ নিয়ে জার্মান দলের অন্যতম ভরসা বাস্তিয়ান সোয়াইনস্টাইগার বলেছেন, “ব্রাজিলিয়ানরা আগের মতো আর ফুটবল জাদুকর নয়৷ ওদের দলের পরিবর্তন হয়েছে৷খেলার স্টাইলেও পরিবর্তন হয়েছে। আমরা নিজেদের খেলা মেলে ধরব সেমিফাইনালে৷ জেতা ছাড়া আর কিছুই ভাবছি না আমরা।” থমাস মুলারকে সামনে রেখেই ব্রাজিল মাত করার নীল নকশা করছেন জোয়াকিম লো৷ ক্লোসার সামনে রয়েছে রোনাল্ডোকে টপকে বিশ্ব রেকর্ডের হাতছানি। তাই এই বয়সেও নিজেকে উজাড় করে দিতে মরিয়া জার্মানির ফুটবলারটি৷ গোটা দলটাই তেতে রয়েছে পুরোনো প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য।

২০০২ সালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দলের কোচ ছিলেন স্কলারি। সেবারেও বিপক্ষে ছিল জার্মানি৷ কাকতলীয়ভাবে এবারও বিশ্বকাপের আসরে বিপক্ষ জার্মানি। এবারও কোচ ব্রাজিলের কোচ স্কলারি৷ ইতিহাস কাদের হয়ে কথা বলে সেটাই এখন দেখার।

বিশ্বকাপে একবারই মুখোমুখি হয়েছিলো দুই দল। ২০০২ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে রোনালদোর জোড়া গোলে জার্মানিকে ২-০ গোলে পরাজিত করে ব্রাজিল। সব মিলিয়ে মুখোমুখি লড়াইয়েও অনেক এগিয়ে সেলেকাওরা। দুই দলের ২১ বারের সাক্ষাতে ব্রাজিল জয় পেয়েছে ১২টি ম্যাচে আর জার্মানির জয় ৪ ম্যাচে। অপর ৫টি ম্যাচ ড্র হয়।
– See more at: http://www.priyo.com/2014/07/08/84045.html#sthash.ALhcb8KI.dpuf






মন্তব্য চালু নেই