মেইন ম্যেনু

ইউএনওকে ‘পেটালো’ যুবলীগ

মাদকসহ আটক যুবককে বিচারের আওতায় আনার ঘটনায় আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দেবী চন্দকে লাঞ্ছিত করেছে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা। পরে ইউএনওর অপসারণ দাবি করে বিক্ষোভ করেছে নেতাকর্মীরা।

রোববার বিকেল ৫টার দিকে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা একত্রিত হয়ে কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও ইউএনওকে লাঞ্ছিত করে।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত কোনো ছাত্র বা যুবলীগ নেতাকর্মীকে আটক করেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শনিবার রাতে উপজেলার সেরাল গ্রাম থেকে আবুল হাসেমের ছেলে নজরুল ইসলামকে (২২) গাঁজাসহ আটক পুলিশ। পরদিন রোববার বেলা সাড়ে ১২টায় আটক নজরুলকে বিচারের আওতায় নেয়ার জন্য ইউএনও কার্যালয়ে নেয়া হয়।

এ খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজাদ সেরনিয়াবাত। এসময় তিনি আটক নজরুলকে ছেড়ে দেয়ার জন্য ইউএনওকে অনুরোধ করেন। এতে ইউএনও রাজি না হওয়ায় ছাত্র ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা একত্রিত হয়ে তার কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এসময় তাদের বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে ইউএনওকে লাঞ্ছিত করা হয়।

এ ঘটনার পরে ছাত্র ও যুবলীগের উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে সমাবেশ করে ইউএনওকে অপসারণ দাবি করে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেয়।

আগৈলঝাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজ্জাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এ ব্যাপারে জানতে আগৈলঝাড়া ইউএনও দেবী চন্দের মোবাইল ফোনে একাধিক চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।






মন্তব্য চালু নেই