মেইন ম্যেনু

আশুলিয়ার ৫৯টি কারখানা আজও বন্ধ : উস্কানীর অভিযোগে সাংবাদিকসহ আটক ২৩

বিজিএমইএ’র ঘোষনায় ৪র্থ দিনের মতো আজও বন্ধ রয়েছে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের ৫৯টি পোশাক কারখানা। অব্যাহত শ্রমিক বিক্ষোভের মুখের কারখানা গুলো অনিদিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষনা করে বিজিএমইএ।

এদিকে বন্ধ থাকা কারখানার প্রধান ফটকগুলোর সামনে ছাড়াও গোটা শিল্পাঞ্চলে মোতায়েন রয়েছেন কয়েক হাজার পুলিশ সদস্যসহ বিভিন্ন আইনশৃংখলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যরা। শ্রমিকদের কারখানা কিংবা মহাসড়কে না উঠতে পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে।

অন্যদিকে শ্রমিকরা কারখানার সামনে এসে করখানা খোলা হয়েছে কিনা খবর নিতে কারখানার সামনে এসে আবার ফিরে যাচ্ছে।

এদিকে শ্রমিক অসন্তোষের ঘটনায় প্রায় এক হাজার জনকে আসামী ফাউনটেন, এনআরএন, দি রোজ ড্রেসেস, উইন্ডি গ্রুপ, হামীম গ্রুপ কারখানা কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের পক্ষ থেকে দুইটি মামলা দায়ের করেছে। ইতিমধ্যে ১০ শ্রমিক, ৮ শ্রমিক নেতা, সাবেক সাংসদও স্থানীয় নিউজ টোয়েন্টিফোর চ্যানেলের সাংবাদিক নাজমুল হুদা ও সাভার উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মিনিসহ ৫জনসহ মোট ২৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সাংবাদিক আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার আওয়ার নিউজকে জানায়, যে কোন ব্যক্তি যদি শ্রমিকদের উস্কানীর সাথে সম্পৃক্ত থাকে তবে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

তিনি আরও জানায় শ্রমিকদের যোদি কাজে ফেরার মনোভাব জাগে তবে এই মেসেজটি পুলিশের পক্ষথেকে বিজিএমইও শ্রমমন্ত্রনালয়ে জানান হবে তখন তারা সিদ্ধান্ত নিবেন গার্মেন্টস কবে নাগাদ খুলে দেয়া হবে।

অন্যদিকে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ ১ এর পরিচালক মেস্তাফিজুর রহমান বলেন সাভার,আশুলিয়া,ধামরাইয়ে একহাজারের বেশী কারখানা আছে কিন্তু আন্দোলন সক্রান্ত সমস্যা শুধু আশুলিয়ার ৫৯টি কারখানায়।এই কারখানা গুলো বন্ধ আছে বাকি সব কারখানা গুলো খোলা রয়েছে।এবং আইন শৃঙ্খলা অবস্থা তাদের নিয়ন্ত্রনে আছে বলেও জানান তিনি।

শিল্পাঞ্চলের জামগড়া, জিরাবো, নরসিৎহপুর, বাইপাইল, আশুলিয়া এলাকার পোশাক কারখানা গুলো ছাড়া ডিইপিজেডসহ অন্যান্য এলাকার পোশাক কারখানা গুলোতে উৎপাদন অব্যহত রয়েছে।

এদিকে আজও কারখানা খোলা হয়েছে কিনা তা জানার জন্য অনেক শ্রমিককে কারখানা ফটক থেকে ঘুরে যেতে দেখা গেছে।

এমন এক শ্রমিক আতাউর বলেন আমাদের কারখানা খুলে না দিলে আমরা কিভাবে চলব,তাই আমাদের দাবী আমাদের বন্ধ কারখানা খুলে দেয়া হোক ও কিছু বেতন অন্তত বাড়ানো হোক যাতে করে পরিবার পরিজনকে নিয়ে চলতে পারি।






মন্তব্য চালু নেই