মেইন ম্যেনু

মালয়েশিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত

আলামত ধ্বংস করছে রুশপন্থি বিদ্রোহীরা

রুশপন্থি বিদ্রোহীরা মালয়েশিয়ার যাত্রীবাহী বিমানটিতে হামলা চালিয়ে এটি ভূপতিত করার পর এখন তারা এর আলামত ধ্বংস করার মত আন্তর্জাতিক অপরাধে লিপ্ত রয়েছে বলে ইউক্রেন সরকার অভিযোগ করেছে।

শনিবার ইউক্রেন সরকার অভিযোগ করে বলে, বিদ্রোহীরা শুরু থেকেই বিধ্বস্ত বিমানের তদন্তে নিয়োজিত আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিদের ঘটনাস্তলে যেতে বাধা দিচ্ছে। তারা কিয়েভের নিজস্ব তদন্তকারী দলকেও ঘটনাস্থলে ঘেষতে দিচ্ছে না। অভিযোগে আরো বলা হয়, দোনেতস্কের ‘সন্ত্রাসীর ’ ইতিমধ্যে ৩৮টি মৃতদেহ মর্গে নিয়ে গেছে। এছাড়া তারা বিমানটির ধ্বংসাবশেষ রাশিয়ায় পাচার করে দেয়ারও চেষ্টা চালাচ্ছে।

অথচ এর আগে উদ্ধারকাজে কোনওরকম বাধা দেওয়া হবে না বলে আশ্বস্ত করেছিল বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। ইতিমধ্যে বিমানের দুটি ব্ল্যাক বক্স এবং ভয়েস ডেটা রেকর্ডার পাওয়া গেছে। তবে দয়েতস্কের গ্রামের লোকেরা ইতিমধ্যেই স্মারক হিসেবে বিমানটির ধ্বংসাবশেষ বাড়ি নিয়ে যেতে শুরু করেছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিমানের টুকরোগুলি না পাওয়া গেলে কোনওদিনই প্রমাণ করা যাবে না তা কীভাবে ধ্বংস করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের এমএইচ-১৭ বিমানটি ২৮৩ জন যাত্রী এবং ১৫ জন ক্রু নিয়ে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে বিধ্বস্ত হয়।রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের একটি গোষ্টি ‘সিকিউরিটি সার্ভিস অফ ইউক্রেন’ শনিবার বিমানটির উপর ক্ষেপণাস্ত্র হামলার দায় স্বীকার করেছে।

এই বিমানেই ছিলেন বিশ্বের বেশ কয়েকজন খ্যাতনামা এইডস বিশেষজ্ঞ। মেলবোর্নে এইডস সম্মেলনে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন তাঁরা। তাদের মৃত্যুর ফলে এইডস গবেষণায় গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে বলে ধারণা করছেন বিশেজ্ঞরা।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই