মেইন ম্যেনু

আমেরিকাকে যুদ্ধের হুমকি চীনের

দক্ষিণ চিন সাগরে বেজিংয়ের কৃত্রিম দ্বীপের নির্মাণ এখন আমেরিকার মাথাব্যাথার কারণ। আমেরিকার অভিযোগ, দক্ষিণ চিন সাগরে মানব-সৃষ্ট দ্বীপ গড়তে চলেছে কমিউউনিস্ট চিন সরকার। এরফলে ওই অঞ্চল আরও বেশি সামরিক দিক থেকে গুরুত্ব পাবে।

আমেরিকার এমন খবরদারিতে চীনও ক্ষুব্ধ। সোমবার সেই ক্ষোভই প্রকাশ করল চীনের কমিউনিস্ট পার্টির মুখপত্র দৈনিক গ্লোবাল টাইমসের সম্পাদকীয় কলামে। এতে আমেরিকাকে রীতিমতো হুমকি দিয়েছে চীন। বলা হয়েছে, পেন্টাগন এখনই সংযত না হলে চীন-আমেরিকা যুদ্ধ অনিবার্য।

ওই দৈনিকটিতে বলা হয়, আমেরিকা বেইজিংকে দক্ষিণ চিন সাগরে নির্মীয়মান প্রকল্পের কাজ বন্ধ রাখতে বলেছে। এই নির্মাণ বন্ধ না হলে আমেরিকা-চিন যুদ্ধ হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে। যদি আমেরকিার যদি এটাই শেষ কথা হয়, তবে চীন সাগরে আমেরিকার সঙ্গে যুদ্ধ অবশ্যম্ভাবী।

দৈনিকটিতে রীতিমতো হুমকি দিয়ে আরো বলা হয়, ‘সংঘাত হলে মানুষ যা বুঝে থাকে, আমেরিকা-চীন যুদ্ধের বিস্তার তার চেয়ে ভয়ংকর হবে।’ দৈনিকটির হুঁশিয়ারি, দক্ষিণ চীন সাগরের নির্মাণকাজ শেষ করতে বেইজিং বদ্ধপরিকর। আর এটিই চীনের ‘শেষ কথা।

গ্লোবাল টাইমসের সম্পাদকীয়তে বলা হয়, আমরা আমেরিকার সঙ্গে সামরিক সংঘাত চাই না। তবে এটি যদি আসে তাহলে আমরা তা সাদরে গ্রহণ করব। গত সপ্তাহে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে দক্ষিণ চীন সাগরের আকাশে গোয়েন্দা বিমান না ওড়াতে সতর্ক করে দিয়েছিল চীন। এবার প্রকাশ্যে যুদ্ধের হুমকি দিয়ে ওয়াশিংটনকে বার্তা দিল চীন।

প্রসঙ্গত, বেশ কিছুদিন ধরেই দক্ষিণ চীন সাগরে বেইজিংয়ের কৃত্রিম দ্বীপের নির্মাণকাজ এবং ওই এলাকার আকাশে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানের আনাগোনা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা তীব্রতর হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই