মেইন ম্যেনু

আমিরাতের মন্ত্রীকে তারেকের চিঠি

সংযুক্ত আরব আমিরাতকে (ইউএই) বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য ভিসা খুলে দেয়া ও আরো শ্রমিক নিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান।
বৃহস্পতিবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আহমেদ আব্দুল রহমান আল জারমানের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে এ আহ্বান জানান তিনি।
তারেক রহমানের বিশেষ উপদেষ্টা হুমায়ুন কবিরের সঙ্গে সম্প্রতি লন্ডনে ইউএইর যুবরাজ শেখ মোহাম্মাদ বিন মাখতুম আল মাখতুমের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। এর ফলশ্রুতিতেই চিঠিটি পাঠানো হয়েছে।
বিষয়টি জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা কমিটির সদস্য সচিব মুশফিকুল ফজল আনসারী।
তিনি বলেছেন, ‘চিঠিটি সরাসরি আরব আমিরাতের পররাষ্ট্র দপ্তরে পাঠানো হয়েছে এবং এর একটি অনুলিপি ঢাকাস্থ আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূতের কাছে হস্তান্তর করেছেন চেয়ারপারসনের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক দূত মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী।’
জিয়াউর রহমানের সময়কালীন আরব আমিরাতের সঙ্গে বাংলাদেশের সুসম্পর্কের কথা স্মরণ করে তারেক রহমান চিঠিতে বলেছেন, আমিরাত ও বাংলাদেশ দুটি ভ্রাতৃপ্রতিম দেশ। এই দুটি মুসলিম দেশের মধ্যে সম্পর্কের ভিত্তি গড়ে উঠেছিল প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সময়কালীন থেকেই। এই সম্পর্কের বন্ধন দৃঢ় ও মজবুত করে তোলার জন্য তিনি বাংলাদেশ থেকে আরো শ্রমিক নিয়োগের উদাত্ত আহ্বান জানান।
বাংলাদেশে বিভিন্ন পেশার বিপুল সংখ্যক দক্ষ জনবল রয়েছে। এ জনবলের একটি অংশ ইউএই তাদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে কাজে লাগাতে পারে। এজন্য বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য আরব আমিরাতের ভিসা প্রক্রিয়া সহজিকরণে দেশটির সরকার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য চিঠিতে অনুরোধ করেন তারেক রহমান।
বাংলাদেশে বিনিয়োগের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বাংলাদেশে আমিরাতের বিনিয়োগকে স্বাগত জানায়। আমিরাতের বিনিয়োগ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক বুনিয়াদকে আরো মজবুত করবে।’ শ্রম বাজারে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নেয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশি দক্ষ জনশক্তি নিয়োগের মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বৃদ্ধি পাবে বলেও চিঠিতে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারেক রহমান।
চিঠির মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশগুলোর সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক উন্নয়নের ব্যাপারে তার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে তারেক রহমান বলেন, ‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আমিরাত সরকার দেশটিতে বসবাসরত বাংলাদেশিদের যাবতীয় সমস্যা সমাধানে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে।’
তিনি এ চিঠির মাধ্যমে আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট ও আবুধাবির শাসক খলিফা বিন জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ান, আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মাদ বিন রাশিদ আল মাখতুমের বাংলাদেশে অব্যাহত সহায়তা প্রদানের জন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
প্রসঙ্গত, বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশি শ্রমিক নেয়া বন্ধ রেখেছে এবং বাংলাদেশি নাগরিকদের শুধু ট্রানজিট ভিসা দিলেও অন্য সব ধরনের ভিসা দেয়া থেকে বিরত রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই