মেইন ম্যেনু

আঙুলের মাপ বলে দেবে প্রেমিকের স্বভাব

বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হতে চলেছেন বা কারও প্রেমে পড়েছেন। তা হলে একবার সঙ্গীর আঙুলের দিকে এক নজর দিতে ভুলবেন না। সঙ্গী বলতে এ ক্ষেত্রে অবশ্য পুরুষসঙ্গী। কারণ, সম্প্রতি একটি গবেষণায় জানা গিয়েছে, পুরুষদের আঙুলের মাপই বলে দেবে, নিজের মহিলা জীবনসঙ্গীর সঙ্গে কতটা ভালো ব্যবহার করতে পারবেন তারা।

গবেষণায় জানা গিয়েছে, যে পুরুষের অনামিকার দৈর্ঘ্য তর্জনীর দৈর্ঘ্যের কাছাকাছি, মহিলাদের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক মধুর হয়। আবার যাদের তর্জনীর তুলনায় অনামিকা ছোট, মহিলাদের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক খুবই ভালো হয়।

এই ‘ডিজিট রেশিও’-র নাম দেওয়া হয়েছে ২ডি:৪ডি। এটি যৌনতা উদ্রেককারী হরমোনের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। আঙুলের ডগা থেকে তার টিপ পর্যন্ত দৈর্ঘ্যে মাপ নেওয়া হয়।

কানাডার ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক ডেবি মসকোউইতজের নেতৃত্বে এই গবেষণাটি করা হয়েছিল। তিনি বলেন, ‘কম ২ডি:৪ডি অনুপাত (তর্জনী এবং অনামিকার দৈর্ঘ্য প্রায় সমান বা তর্জনীর তুলনায় অনামিকা ছোট) রয়েছে এমন পুরুষরা মহিলাদের কথা মন দিয়ে শোনেন, হাসিমুখে কথা বলেন, আপোস করতে সক্ষম হন এবং মহিলাদের প্রশংসা করেন।’

পার্সোন্যালিটি অ্যান্ড ইন্ডিভিজুয়াল ডিফারেন্সেস নামে একটি জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণায় বলা হয়েছে, যাঁদের মধ্যে ২ডি:৪ডি অনুপাত কম, তাদের একাধিক সন্তান হয়।

আবার এই অনুপাত যে পুরুষের মধ্যে বেশি অর্থাত্, দুই আঙুলের মধ্যে দৈর্ঘ্যের পার্থক্য বিস্তর তারা ঝগড়ুটে হন। মহিলাদের সঙ্গে তাদের বিশেষ বনিবনা হয় না।

১৫৫ জন পুরুষ ও মহিলাদের মধ্যে এই গবেষণা চালানো হয়। প্রত্যেকেরই বয়স ছিল ১৮ থেকে ৫৪-র মধ্যে। তবে মহিলাদের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, আঙুলের দৈর্ঘ্যের পার্থক্য তাদের ব্যবহারে কোনো প্রভাব ফেলে না।






মন্তব্য চালু নেই