মেইন ম্যেনু

আক্কেল দাঁতে বেআক্কেল ব্যথা হলে কী করবেন

ডা. মো. মোস্তাফিজুর রহমান : রুপাংকা (২০) তিন দিন ধরে জ্বরে ভুগছেন। এরসঙ্গে কানে ও মাথায় রয়েছে প্রচণ্ড ব্যথা। এদিকে এক সপ্তাহ পরই তার ফাইনাল পরীক্ষা। তাই ব্যথা সহ্য করতে না পেরে প্রথমে তিনি নাক কান ও গলা (ইএনটি) বিশেষজ্ঞের কাছে গিয়ে পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করেন। কিন্তু নিয়মিত ওষুধ সেবন করার পরও ফের একই রকম ব্যথা শুরু হয়।

এবার ব্যথাটা মাথা কান হয়ে চোয়ালের ঠিক পেছনে এসে জমা হচ্ছে। অসহ্য ব্যথায় চোখে পানি এসে যাচ্ছে তার। পরে ব্যথা সহ্য করতে না পেরে তিনি দন্ত বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হন।

রুপাংকারের এই অসহ্য ব্যথাটা কানে বা মাথার সমস্যা থেকে হয়নি, এটা দাঁতের ব্যথা মানে আক্কেল দাঁতের বেআক্কেল ব্যথা।

আক্কেল দাঁত কী

আমাদের মুখ গহ্বরের ওপরের ও নিচের পাটির সবচেয়ে পেছনে বামে-ডানে মিলিয়ে মোট চারটি পেষণ দাঁতই হচ্ছে আক্কেল দাঁত। এটা মাড়ির এক্কেবারে শেষে ওঠে।

১৭ থেকে ২৫ বছর বয়সের ভিতরেই সাধারণত এ দাঁত চলে আসে। কিন্তু বিপত্তিটা ঘটে তখনই যখন এটি ঠিকমত উঠতে পারে না।

ব্যথার কারণ : অনেক সময় আক্কেল দাঁত আঁকা-বাঁকা হয়ে উঠে। কখনো আবার মাড়ির হাড়ের ভিতরে ঢুকে থাকে। এসব ক্ষেত্রে বার বার ইনফেকশন হয়। ঠিক মত ক্লিনিং করতে না পারার কারণে খাবার জমে দাঁতে ক্ষয় রোগ বা ক্যারিজ হয়। ফলে প্রচণ্ড ব্যথা হয় যা কান ও মাথা অবধি ছড়ায়।

চিকিৎসা : আক্কেলদাঁতের চিকিৎসা ঠিক সময়ে না করালে অনেক বিপত্তি ঘটতে পারে। ইনফেকশন মুখ থেকে ছড়িয়ে গলা বা বুকেও যেতে পারে। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এক্স-রে করে আক্কেল দাঁতের অবস্থা ও অবস্থান সম্পর্কে জানতে হবে।

আক্কেল দাঁত খাবার চিবোতে তেমন কাজে আসে না। খাবার চিবোনোর জন্য আক্কেল দাঁতের সামনে আরো দুটো পেষণ দাঁত রয়েছে। তাছাড়া আক্কেল দাঁত সংরক্ষণের চিকিৎসা বা রুট ক্যানেল ট্রিটমেন্টও কষ্টসাধ্য।

এক্ষেত্রে দাঁত আঁকা-বাঁকা হয়ে উঠলে কিংবা খুব বেশি ক্ষয় হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে অপারেশান করাই ভালো।

মুখ ও দন্ত রোগ বিশেষজ্ঞ এবং সিনিয়ার কনসালটেন্ট
নর্দান ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ধানমণ্ডি ৮/এ, ঢাকা।






মন্তব্য চালু নেই