মেইন ম্যেনু

অবশেষে ইবোলা টিকার সফল পরীক্ষা সম্পন্ন

অবশেষে ইবোলা মহামারী আতঙ্কের দিন শেষ হয়ে আসছে। এই ভাইরাস প্রতিরোধে একটি টিকার সফল পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

যে প্রতিষেধক টিকাটি মানুষের উপর পরীক্ষা চলছিল সেটিকে নিরাপদ বলেই মনে করছেন গবেষকরা। এই টিকা ব্যবহারের পর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ইবোলা ভাইরাসকে সনাক্ত করে তা মোকাবেলা করতে পারবে বলে আশা করা হচ্ছে।

EBOLA

ইবোলা-ইউরোপা

ইবোলা-ইউরোপা

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ হেলথ বলছে তাদের গবেষণাগারে ২০ জন মানবদেহের উপর এই টিকার পরীক্ষা বা ট্রায়ালে অংশ নেয়। তাদের শরীরে টিকাটি দেবার পর ইবোলা ভাইরাস সনাক্ত করতে পেরেছে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। টিকাটি ব্যবহারে আপাতত অন্য কোনো ধরনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও দেখা দেয়নি।

 

ইবোলা আক্ত্রান্ত রোগীর হাত

ইবোলা আক্ত্রান্ত রোগীর হাত

ঔষধ কোম্পানি গ্লাক্সো স্মিথ এন্ড ক্লাইন এর প্রধান নির্বাহী স্যর এ্যন্ড্রু উইটি বলেছেন, একটি সফল প্রতিষেধক আবিষ্কারে এই বিষয়গুলিই প্রথম ধাপ আর তাতে এই ধরনের ফল ব্যাপক আশার কথা।

তিনি বলেছেন, আমি মনে করি এটি একটি খুবই উৎসাহ ব্যঞ্জক প্রাথমিক ইংগিত। এটিকে অবশ্যই একটি আশার আলো বলতে হবে।

গবেষকরা বলছেন, যদি আরো পরীক্ষায় আবারো একই ধরনের সফলতা দেখা যায় তাহলে এই টিকা জানুয়ারির মধ্যে পশ্চিম আফ্রিকায় ইবোলা রোগীদের সেবা দানকারী কয়েক হাজার স্বাস্থ্য কর্মীদের দেয়া হবে।

ইবোলা ভাইরাস

ইবোলা ভাইরাস

প্রসঙ্গত, এবছর গোড়ার দিকে পশ্চিম আফ্রিকার সিয়েরা লিওন, গিনিসহ কয়েকটি দেশে হঠাৎ করে ইবোলা সংক্রমণ দেখা দেয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাবে এই সংক্রমণে নিহতের হার ৭০ শতাংশের ওপরে। অপরদিকে আফ্রিকার গণ্ডি পেরিয়ে ইবোলা বছরের মাঝামাঝি সময়ে এসে চড়িয়ে পড়তে শুরু করে অন্যান্য মহাদেশেও। সম্প্রতি ভারতের দিল্লি বিমানবন্দরে এক যুবকের দেহে ইবোলা সনাক্ত করা হয়। তিনি আফ্রিকার একটি দেশে অবস্থানকালে ইবোলা সংক্রমণের শিকার হন। সেখানেই তার চিকিৎসা সম্পন্ন হলেও তার শুক্রাশয়ে ইবোলা শেষ পর্যন্ত রয়ে গিয়েছিলো।

সূত্র: বিবিসি বাংলা অনলাইন



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই