মেইন ম্যেনু

৫ স্কুল ছাত্র আটক, দ্রুত বিচার আইনে মামলা : সোনাতলায় যাত্রীবেশে সিএনজি ছিনতাইয়ের চেষ্টা

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় যাত্রীবেশে সিএনজি ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেছে ৫ জন স্কুল ছাত্র। পরে তাদের স্থানীয় লোকজন আটক করে উত্তম মাধ্যম দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এ ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।

জানাগেছে, গত মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে ৫ স্কুল ছাত্র বগুড়া শহরের চেলোপাড়া থেকে সোনাতলা উপজেলার চরপাড়া এলাকায় যাওয়ার কথা বলে ২ শ’ টাকায় জিআর এন্টারপ্রাইজ (নং- ঠ-১১২৭৯৭) নামের একটি সিএনজি ভাড়া নেয়। সিএনজিটি চরপাড়া বাজার পৌছিলে সিএনজি চালক সুশিল চন্দ্রকে ভাড়া বেশী দেওয়ার কথা বলে পাকুল্লা এলাকায় নিয়ে যাওয়ার পথে সর্জনপাড়া ব্রীজের উপর পৌছিলে স্কুল ছাত্ররা সিএনজি চালক সুশিল চন্দ্রকে বেধে রেখে সিএনজি নিয়ে মহাস্থান রোডে পালানোর চেষ্টা করে। ছিনতাইয়ের ঘটনা এলাকায় জানাজানি হলে স্থানীয় লোকজন সিএনজি পিছনে ধাওয়া করে। পরে ছিনতাইকারীরা সৈয়দ আহম্মদ কলেজ ষ্টেশন বটতলা থেকে মহাস্থান রোডের শিহিপুর গ্রামে রাস্তার পাশ্বে সিএনজি রেখে পালানোর চেষ্টা করে। এসময় ছিনতাইকারীরা পথ ভুলে লোকালয়ে ঢুকে পরলে জনগন তাদের আটক করে। পরে তাদের উত্তম মাধ্যম দিয়ে থানা পুলিশে সোপর্দ করে। আটককৃতরা হলো বগুড়া শহরের নিশিন্দারা এলাকার জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে আল আমিন জুলফিকার (১৫), নিশিন্দারা শাহপাড়া এলাকার ইয়ছিন আলীর ছেলে আনোয়ার হোসেন (১৬), নিশিন্দারা ভবের বাজার এলাকার আব্দুল মজিদের ছেলে শফিয়ার রহমান সালেকিন (১৭), নিশিন্দারা মন্ডল পাড়া এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে সোহাগ (১৬) ও নিশিন্দারা হাকির মোড় এলাকার আনোয়ারের ছেলে আবু বক্কর (১৬)। আটককৃতরা বগুড়া শহরের ফকির উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র বলে জানাগেছে।

সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সেলিম হোসেন বলেন, ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে দ্রæত বিচার আইনে সিএনজি চালক সুশিল চন্দ্র বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছে।






মন্তব্য চালু নেই