মেইন ম্যেনু

৫০ বিচারককে বদলি ও ৪৭ সাব-রেজিস্ট্রারের পদায়ন

ঢাকার সহকারী জজ, সিনিয়র সহকারী জজ, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটসহ সমপর্যায়ের ৫০ জন কর্মকর্তাকে দেশের বিভিন্ন স্থানে বদলির আদেশ জারি করেছে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা ড. মো. রেজাউল করিম সোমবার সন্ধ্যায় এই তথ্য নিশ্চিত করেন। একই সঙ্গে ৪৭ জন সাব-রেজিস্ট্রারের পদায়নের আদেশ জারি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, তাদের বদলির আদেশে কার কর্মস্থান কোথায় সেটা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইট থেকে জানতে পরবেন। তবে সাব রেজিস্ট্রারদের পদায়নের বিষয়টি নিম্নে উল্লেখ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আজ (১১ জুলাই) আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে নবনিয়োগ প্রাপ্ত ৪৭ জন সাব-রেজিস্ট্রারের পদায়নের আদেশ (প্রথম পদায়ন) জারি করা হয়েছে। পদায়নের আদেশপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণকে অবিলম্বে তাদের নামের পার্শ্বে বর্ণিত কর্মস্থলে যোগদানের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

মন্ত্রণালয় ৫০ জন বিচারকের বদলির আদেশে বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে পরামর্শক্রমে সহকারী জজ/সিনিয়র সহকারী জজ/জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/সমপর্যায়ের ৫০ জন কর্মকর্তার বদলির আদেশ জারি করেছে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। বদলির আদেশপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণের নাম, বর্তমান কর্মস্থল ও বদলিকৃত কর্মস্থল মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইট www. lawjusticediv.gov.bd অনুসন্ধানের মাধ্যমে জানা যাবে।

ড. রেজাউল করিম আরো বলেন, বিচারকদের নামের তালিকা এবং কাকে কোথায় বদলি করা হয়েছে তা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

পদায়নকৃত কর্মকর্তাগণ (সাব-রেজিস্ট্রার) হলেন রাজীব মজুমদার-তাহেরপুর, সুনামগঞ্জ; মো. খায়রুল বাশার ভূঁইয়া পাভেল-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, সুনামগঞ্জ; মো. হাফিজুল রহমান-লাখাই, হবিগঞ্জ; মো. রাসেল মল্লিক-দক্ষিণ আইচা, ভোলা; রাফেয়েল ফাতেমী-তজুমুদ্দীন, ভোলা; মো. জাহিদুল হক-ক্ষেতলাল, জয়পুরহাট; মো. মনজুরুল আলম-বাহুবল, হবিগঞ্জ; মিজানুর রহমান-বনপাড়া, নাটোর; মো. মাহ্ফুজুর রাহমান-আটোয়ারী, পঞ্চগড়; মো. নাজরান রউফ-হরিপুর, ঠাকুরগাঁও; মো. জুবায়ের হোসেন-ডিমলা, নীলফামারী; এস.এম আবু মুছা-দাকোপ, খুলনা; মহসীন উদ্দিন আহমেদ-চাখার, বরিশাল; জহিরুল ইসলাম-নাগেশ্বরী, কুড়িগ্রাম; মো. তৌহিদুল ইসলাম-কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী; মিজাহারুল ইসলাম-রাজারহাট, কুড়িগ্রাম; মো. রবিউল ইসলাম-নবাবগঞ্জ, দিনাজপুর; মো. হেনায়েত উদ্দিন-ব্রাহ্মণপাড়া, কুমিল্লা; মো. মাকসুদুর রহমান-বামনা, বরগুনা; এস.এম রুবেল পারভেজ-গোয়ালন্দঘাট, রাজবাড়ী; রায়হান মিয়া-শালথা, ফরিদপুর; দেবদ্যুতি রায়-তেতুলিয়া, পঞ্চগড়; অঞ্জনা রানী-হাকিমপুর, দিনাজপুর; ফরিদা আক্তার-ফুলগাজী, ফেণী; মো. সাদিকুল ইসলাম তালুকদার-মুজিবনগর, মেহেরপুর; সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন-ইটনা, কিশোরগঞ্জ; আবুল হোসেন দেওয়ান-মনপুরা, ভোলা; মো. আ. করিম খান-ভেদেরগঞ্জ, শরীয়তপুর; আবুল বাসার খান-ফরিদপুর (বনওয়ারীনগর), পাবনা; শান্তি রঞ্জন বৈদ্য-মোহনগঞ্জ, নেত্রকোনা; ক্ষিরোদ চন্দ্র বোস-হিজলা, বরিশাল; আবদুল গণি ভূঁইয়া-হোসেনপুর, কিশোরগঞ্জ; আব্দুর রহমান ভূইয়া-ঝিনাইগাতি, শেরপুর; গৌরাঙ্গ চন্দ্র দেবনাথ-মহেশখালী, কক্সবাজার; মো. শরিয়ত হোসেন-খোকশা, কুষ্টিয়া; মো. জাহাঙ্গীর আলম মজুমদার-পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা; রওশন আরা বেগম-পোরশা নওগাঁ; এস.এম. কামরুল হোসেন-আদিতমারী, লালমনিরহাট; মোছা. মমতাজ বেগম-গঙ্গাচড়া, রংপুর; নিতেন্দ্র লাল দাস-জীবননগর, চুয়াডাঙ্গা; মো. ফজলে রাব্বী-দশমিনা, পটুয়াখালী; মো. হাবিবুর রহমান তালুকদার-মোল্লারহাট, বাগেরহাট; অশোক কুমার বসাক-কোর্ট চাঁদপুর, ঝিনাইদহ; মো. জয়নাল আবদীন-শ্রীপুর, মাগুড়া; মো. আবুল কাসেম-জৈন্তাপুর, সিলেট; মো. ইউনুস-মাদারগঞ্জ, জামালপুর এবং রাশিদা ইয়াসমিন মিলি-পবা, রাজশাহী। -জাগো নিউজ






মন্তব্য চালু নেই