মেইন ম্যেনু

৩১ ফুটবলারের বিরুদ্ধে ৫২টি ধর্ষণের অভিযোগ!

টেক্সাসের বেইলর বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩১ ফুটবলারের বিরুদ্ধে ৫২টি ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির এক সাবেক ছাত্রী। খবর নিউইয়র্ক পোস্টের।

ক্রীড়াক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়টির যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীদের ফুটবল শেখানোর জন্য বিশেষ টিম কাজ করে। একজন প্রধান কোচও রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টি মেয়েদের যথেষ্ট নিরাপত্তা দেয়ার দাবি করলেও ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত এই ধর্ষণের ঘটনাগুলো ঘটে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি ফুটবল প্রোগ্রাম পরিচালনা করা হয়। ওই প্রোগ্রাম চলাকালেই বিভিন্ন টিমের ফুটবলারদের দ্বারা এসব ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষসহ ওই ফুটবলারদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন সেখান থেকে স্নাতক সম্পন্ন করা এক ছাত্রী।

ওই ছাত্রী নিজেও দুই ফুটবলারের লালসার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ রয়েছে, ওই চার বছরে বেশ কিছু গণধর্ষণের ঘটনাও ঘটেছে। এ বিষয়ে অনেকেই ওই ফুটবলারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে কোনো কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।

ওই ছাত্রীর আইনজীবীর দাবি, গত চার বছরে এ বিষয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে তারা ধর্ষণের ঘটনাগুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক প্রেসিডেন্ট কেন স্টার গত ডিসেম্বরে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে গণধর্ষণের বিষয় নিয়ে সন্দেহ পোষণ করেন। এরপরই বিশ্ববিদ্যালয়টির এমন ভয়ংকর স্ক্যান্ডাল সামনে চলে আসে।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির বিরুদ্ধে আরও ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছিল। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নারীদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হন।

ওই ছাত্রীর অভিযোগ, ২০১৩ সালে দুইজন ফুটবলারের দ্বারা ধর্ষণের শিকার হন তিনি। ওয়াকো পুলিশ স্টেশনে এ বিষয়ে জানানো হলেও তারা কোনো অভিযোগ নেননি। ওই ফুটবলারদের শাস্তিও দেয়া হয়নি।

তবে ২০১৫ সালে এক ফুটবলারকে বরখাস্ত করা হয় এবং অন্যজনকে ট্রান্সফার করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই