মেইন ম্যেনু

হিটলারকে নিয়ে গুজব সত্যি হলো এবার

এত দিন ধরে গুজব ছিল জার্মানির প্রাক্তন চ্যান্সেলর ও নাৎসি নেতা অ্যাডলফ হিটলারের দুটি নয়, একটি অণ্ডকোষ ছিল। এবার জার্মানির এক ঐতিহাসিক হিটলারের পুরোনো মেডিক্যাল রিপোর্ট ঘেঁটে দাবি করেছেন, এটি গুজব নয়, প্রকৃতই সত্য।

এরলাঙ্গিন-ন্যুরেমবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পিটার ফ্লিস্কম্যান জানান, ১৯২৩ সালে মিউনিখে অভ্যুত্থান করতে গিয়ে ব্যর্থ হন হিটলার। অভ্যুত্থানচেষ্টার অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারও করে। ল্যান্ডসবার্গ কারাগারে আটক থাকা অবস্থায় বেশ কিছু মেডিক্যাল চেকআপ করা হয়েছিল হিটলারের। একটি মেডিক্যাল রিপোর্টে দেখা গেছে, তার ডান পাশের অণ্ডকোষটি নেই। ওই মেডিক্যাল প্রতিবেদনের লেখক ও ল্যান্ডসবার্গ কারাগারের মেডিক্যাল অফিসার ডা. জোসেফ স্টেইনার ব্রিন লিখেছেন, ‘শিল্পী ও উদীয়মান লেখক এ বিষয়টি ছাড়া পুরোপুরি সুস্থ ও শক্তিশালী।’

২০১০ সালে জার্মানির বাভারিয়ায় হিটলারের এসব মেডিক্যাল প্রতিবেদন নিলামে তোলা হয়েছিল। সম্প্রতি এসব প্রতিবেদন নিয়ে গবেষণা শুরু করেন অধ্যাপক পিটার ফ্লিস্কম্যান। তিনি জানান, ‘খুব সম্ভবত’ হিটলারের একটি অণ্ডকোষ শিশুকালেই বেড়ে ওঠেনি।

প্রসঙ্গত, এর আগে ধারণা করা হতো প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় সোমি এলাকায় লড়াই চলাকালে বোমার স্প্লিন্টারের আঘাতে একটি অণ্ডকোষ হারিয়েছিলেন হিটলার।






মন্তব্য চালু নেই