মেইন ম্যেনু

হাজীগঞ্জে সরস্বতী তৈরি কারিগরা ব্যস্ত সময় পার করছে

সুজন দাস : হিন্দু ধর্মালম্বীদের অন্যতম বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজার এখনো তিন দিন বাকি। এরই মধ্যে প্রতিমা শিল্পীদের তুলির আচড়ে পরিপূর্ণ হয়ে ওঠছে বিদ্যা দেবী সরস্বতীর মুখ।

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি বাণী অর্চনায় উদ্যাপতি হবে সরস্বতী পূজা। এ পূজা উপলক্ষে হিন্দু ধর্মালম্বী ও ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে এখন উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

এদিকে, সরস্বতী পূজাকে কেন্দ্র করে হাজীগঞ্জ শহরের স্বামী বিকেকানন্দ বিদ্যা পিঠে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে। পূজার এই আগ মুহূর্তে এসে এখন দিন-রাত প্রতিমা তৈরি ও প্রতিমায় রং দেয়াতে ব্যস্ত সময় পার করছেন হাজীগঞ্জ প্রতিমা শিল্পীরা। রং দেয়া শেষে প্রতিমায় পোষাক ও অলংকার পড়িয়ে দৃষ্টি নন্দন করা হবে।

প্রতিমা শিল্পী ঝন্টু পাল জানান, সরস্বতী পূজা উপলক্ষে তারা অন্তত ১০ জন শহরের বিভিন্ন মন্দির ও আশ্রমে প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন। শীতকে উপেক্ষা করে প্রতিদিন সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত প্রতিমা তৈরি ও রং করায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। কাজের চাপে একটু দম ফেলারও যেন ফুরসত নেই তাদের। সরস্বতী দেবীর প্রতিটি প্রতিমা সর্ব নিম্ন দেড় হাজার থেকে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিদ্যা দেবী সরস্বতীর আগমনের আনন্দে উদ্বেলিত হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকজন ভক্ত আমাদের প্রতিনিধিকে জানান, প্রতিবছরই তারা সরস্বতী দেবীর কাছে বিদ্যার জন্য প্রার্থনা করেন। এবারও তারা দেবীর কাছে বিদ্যা ও দেশ-জাতির মঙ্গল কামনা করে প্রার্থনা করবেন।

পূজার সার্বিক প্রস্ততি সম্পর্কে জানতে চাইলে উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সমির লাল দত্ত জানান, উপজেলা শহর ছাড়াও বিভিন্ন পাড়া-মহল্লার ক্লাবের উদ্যোগে এবং বাসা-বাড়িতে স্বরসতী পূজা উদ্যাপিত হবে। আমরা আশা করছি কোনো ধরণের বাধা-বিপত্তি ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে জাকজমক পরিবেশে পূজা সম্পন্ন হবে।

অন্যদিকে সরস্বতী পূজাকে কেন্দ্র করে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নিছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করছে চাঁদপুর জেলা পুলিশ।

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার বলেন, স্বরসতী পূজা উপলক্ষে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পুলিশি চেকপোস্ট থাকবে এবং পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকেও পুলিশ মোতায়ে থাকবে।






মন্তব্য চালু নেই