মেইন ম্যেনু

হাজীগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে ৬ ছাত্রী লাঞ্ছিত

সুজন দাস, চাঁদপুর সংবাদদাতা ॥ চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের টংগীরপাড় হাটিলা ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ছয়জন ছাত্রীকে শ্রেণিকক্ষে লাঞ্ছিত করেছে বখাটেরা। গত বুধবার দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়ার অনুষ্ঠান চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

অভিভাবকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এ বিদ্যালয়ে ছাত্রী উত্ত্যক্ত ও লাঞ্ছনার ঘটনা কিছুদিন পর পরই ঘটে। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কঠোর কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে। বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার সাথে চারজন বখাটে জড়িত। এদের মধ্যে দুইজনকে ঘটনাস্থলে আটক করে উত্তম মধ্যম দিয়েছে এলাকাবাসী। পরে জনগণের হাত থেকে তারা পালিয়ে যায়। বিদ্যালয় থেকে পাওয়া তথ্য মতে, চারজনের মধ্যে তিনজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলো দক্ষিণ হাটিলা গ্রামের মজুমদার বাড়ির জাকির হোসেনের ছেলে মোঃ রাজু (২০), একই গ্রামের মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে সায়েদ হোসেন (২৫) ও মোঃ মিঠু (২৪)। মিঠুর বাবার নাম পাওয়া যায়নি।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও এলাকাবাসী ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম মজুমদার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ আলী আশ্রাফীকে জানিয়েছেন। ইউএনও এলাকাবাসীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্র“তি দিয়েছেন। বিদ্যালয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান চলাকালীন ছয়জন মেয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে বসে কথা বলছিল। এ সময় বখাটেরা কক্ষের মধ্যে ঢুকে দরজা জানালা বন্ধ করে দেয়। তারা ছাত্রীদেরকে লাঞ্ছিত করার চেষ্টা করে। পরে ছাত্রীরা ডাক-চিৎকার করলে অনুষ্ঠানস্থল থেকে শিক্ষক ও এলাকাবাসী ছুটে এসে দুই বখাটেকে ধরে উত্তম মধ্যম দেয়। পরে তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ দিকে গতকাল ২৬ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আঃ রশিদ মজমুদার টংগীরপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্যে বলেন, বখাটেদের সামাজিক ভাবে প্রতিহত করতে হবে এবং তাদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আঃ হালিম জানান, বছর খানেক ধরে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার পথে মেয়েদেরকে ১৫/১৬ জন বখাটে উত্ত্যক্ত করে আসছে। বিদ্যালয়ে যাতায়াতের সময় তারা মেয়েদের সামনে মোটর সাইকেল থামিয়ে হুমকি-ধমকি দেয়। তাদের কারণে অনেক মেয়ে স্কুলে যাতায়াত করতে ভয় পাচ্ছে। ছাত্রী উত্ত্যক্ত করা নিয়ে গত বছরের শেষের দিকে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষকের কাছে একাধিকবার অভিযোগ করলেও তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি। মূলত বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি না থাকায় তাদের উৎপাত বেড়ে গেছে।

প্রধান শিক্ষক মোঃ তাফাজ্জল হোসেন আমাদের সময়কে জানান, অনুষ্ঠান চলাকালে এ ঘটনা ঘটেছে। আমি ঘটনাটি ইউএনও ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানিয়েছি। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ে দুই বখাটের নাম দেয়া হয়েছে।

ইউএনও মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম মজুমদার আমাদের সময়কে বলেন, প্রধান শিক্ষক ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমাকে জানিয়েছেন। এ বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে বখাটেদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই