মেইন ম্যেনু

হাওরে আড়াই লাখ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত

বর্ষা মৌসুমের অনেক আগেই এবার পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জের হাওরের পানি বেড়ে হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল ডুবে গেছে। সম্প্রতি হাওরাঞ্চলে মাছ মরে ভেসে উঠছে এবং প্রচুর হাঁস মারা যাচ্ছে।

ইতোমধ্যে হাওর এলাকায় বন্যায় ৮ লাখ ৫০ হাজার ৮৮টি পরিবার ২ লাখ ১৯ হাজার ৮৪০ হেক্টর জমির ফসল এবং ১৮ হাজার ২০৫টি ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এমন তথ্য জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

এদিকে আগামী ১০০ দিন হাওরাঞ্চলে ৩ লাখ ৩০ হাজার পরিবারকে প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে চাল ও ৫০০ টাকা ত্রাণ সহায়তা দেয়ার কথা জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

প্রসঙ্গত, বর্ষা মৌসুমের অনেক আগেই এবার পাহাড়ি ঢলে হাওরের পানি বেড়ে হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল ডুবে গেছে। সম্প্রতি হাওরাঞ্চলে মাছ মরে ভেসে উঠছে এবং প্রচুর হাঁস মারা যাচ্ছে। এ কারণে পানিতে বাইরের থেকে কোনো দূষণ এসে মিশেছে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়। পরে ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞরা এসে পানি পরীক্ষা করে দেখেন।

এদিকে সুনামগঞ্জে হাওরে মাছের মড়কের কারণ অনুসন্ধান করতে হাওর এলাকার পানির ভৌত ও রাসায়নিক গুণাবলী পরীক্ষা করেছেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট নদী কেন্দ্র চাঁদপুরের তিন সদস্যর বিজ্ঞানী প্রতিনিধিদল। শনিবার তারা বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার খরচার হাওর, তাহিরপুর উপজেলার হালিরহাওর ও মহালিয়ার হাওরে পানি পরীক্ষা করে জানান, হাওরের পানি স্বাভাবিক অবস্থায় নেই। পানিতে গ্যাসের উপস্থিতি রয়েছে, এসিটিক পানি ঘন। মাছের বেঁচে থাকার অনুপযোগী। মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মাসুদ হোসেন খান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. আশিকুর রহমান ও ইশতিয়াক হায়দারও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই