মেইন ম্যেনু

স্বস্তিকার আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনায় নতুন মোড়

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, টালিগঞ্জের নায়িকা স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনায় রোববার রাতেই পরিচালক সুমন মুখোপাধ্যায়কে নিউ টাউন থানায় ডেকে পাঠায় পুলিশ। সেখানে পুলিশের জেরার মুখে স্বস্তিকা কান্ডের সঙ্গে নিজের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলে জামিন অযোগ্য ধারায় গ্রেপ্তার দেখানো হয় এই পরিচালককে। কিন্তু গ্রেপ্তারের ১৮ ঘণ্টা পর শারীরিক অসুস্থতা বোধ করায় ব্যক্তিগত বন্ডে ছাড়া হয় পরিচালক সুমনকে।

এদিকে পুলিশ জানায়, শনিবার ভোররাতে নিউ টাউনের একটি পাঁচতারা হোটেলে স্বস্তিকার সঙ্গে দেখা গিয়েছিলো পরিচালক সুমনকে। ওই হোটেলের মধ্যেই তার সঙ্গে গোলমাল হয় স্বস্তিকার। এ সময় স্বস্তিকার উপর রাগ করে হোটেলে ভাংচুর চালান সুমন। তাকে থামানোর চেষ্টা করে কয়েকজন হোটেল কর্মীও আহত হন।

এ সময় হোটেল কর্তৃপক্ষ সুমনের কাছে, চারতলার একটি স্যুট ও খাবারের পুরো বিলসহ ভাংচুরের ফলে নষ্ট হওয়া জিনিসপত্রের ক্ষতিপূরণ দিতে বলেন। কিন্তু সুমন টাকা পরিশোধ না করেই হোটেল থেকে বেরিয়ে যান। তাই হোটেল কর্তৃপক্ষ নিকটস্থ থানায় সুমনের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায়।

এদিকে পুলিশ আরো জানায়, থানা জেরা চলাকালে সুমন অসংলগ্ন কথা বলে পুলিশকে বিভ্রান্ত করতে থাকেন। এমনকি, স্বস্তিকার সঙ্গে হোটেলে গোলমালের বিষয়টিও প্রথমে অস্বীকার করেন। পরে পুলিশের টানা জেরার মুখে সবকিছু স্বীকার করে বলেন,‘আমার সঙ্গে স্বস্তিকার বিশেষ কিছু কারণে গোলমাল হয়েছে। তার উপর রাগ করেই হোটেলে ভাঙচুর চালিয়েছি।

এদিকে স্বস্তিকার আত্মহত্যার চেষ্ঠার পুলিশ আরো জানায়, সুমনের সঙ্গে গোলমাল হওয়ার পরপরই স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় বোতল ভেঙে তার কাচ দিয়ে নিজের বাম হাতের শিরা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি পুলিশকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জানান, বাবার ফ্ল্যাটে ‘নাইট পার্টি’তে দুর্ঘটনাবশত তার হাতে বোতলের কাচ ঢুকে গিয়েছিল। প্রকৃতপক্ষে স্বস্তিকা শুক্রবার রাতে নিউ টাউনের সেই হোটেলে ছিলেন। সেখানেই সুমনের সঙ্গে গোলমাল বাধায় আত্মহত্যার চেষ্টাও করেন।

উল্লেখ্য, টালিগঞ্জের এ সময়েরে আলোচিত সমালোচিত নায়িকা স্বস্তিকার বিয়ে হয় খুব অল্প বয়সে। বিয়ের পরপরই একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। কিন্তু স্বামীর সঙ্গে অশান্তির জের ধরে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন। মেয়েকে নিয়ে বাপের বাড়িতে চলে আসেন। শুরু হয় স্বস্তিকার নতুন করে পথ চলা। টেলিভিশনের পর্দায় আলো ছড়িয়ে ঋতুপর্ণ ঘোষের ‘উৎসব’ চলচ্চিত্রে কাজ করেন। ধীরে ধীরে নিজেকে বদলে ফেলে হয়ে ওঠেন চলচ্চিত্রের নায়িকা। কিন্তু চলচ্চিত্রে বরাবরই সোজাসাপটা স্বস্তিকাকে পেয়ে বসে বির্তক। আর সেই বিতর্কের ধারাবাহিকতায় যুক্ত হলো আরো একটি ঘটনা।






মন্তব্য চালু নেই