মেইন ম্যেনু

স্ত্রীর চেয়ে বয়সে ছোট যেসব বলিউড তারকারা

সাধারণত স্ত্রীর চেয়ে স্বামীর বয়স বেশি হতেই দেখা যায়৷ কিন্তু উল্টোটা হলে ব্যতিক্রমী বলেই ধরা হয়৷ কিন্তু এমন উদাহরণ খোদ বলিউডেও রয়েছে ডজন খানেক ৷ দেখে নেয়া যাক এমন বলিউডি দম্পতিদের৷ এদের কথা ভাবলে বুঝতে অসুবিধা হয় না যে কোনো সম্পর্ক গড়ে তুলতে বয়স কোনো বাধাই নয়।

১) সুনীল দত্ত ও নারগিস: অভিনেতা সুনীল দত্ত বিয়ে করেন তাঁর চেয়ে বয়সে বড় অভিনেত্রী নারগিসকে৷ সেইসময় তারকা হিসেবে সুনীলের তুলনায় অনেক এগিয়ে ছিলেন নারগিস৷ তাঁদের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বিখ্যাত ছবি মাদার ইন্ডিয়া করার সময় থেকে৷ ওই সময় সেটে আগুন লাগলে নিজের জীবন ঝুঁকি নিয়ে নারগিসকে বাঁচিয়ে ছিলেন সুনীল৷

২) অভিষেক বচ্চন ঐশ্বরিয়া: বহু জল্পনা আলোচনার অবসান ঘটেছিল ২০০৭ সালের ২০ এপ্রিলে৷ কারণ শেষ পর্যন্ত ঐশ্বরিয়া রাই বিয়ে করলেন তাঁর চেয়ে দুই বছরের ছোট অভিষেক বচ্চনকে৷ এই দুই সেলিব্রিটির কন্যা আরাদ্ধাও যেন জন্মে থেকেই হয়ে উঠেছেন সেলিব্রিটি৷

৩) আদিত্য পাঞ্চালি ও জারিনা ওহাব: প্রায় তিন দশকের পুরনো হয়ে গেছে আদিত্য পাঞ্চালি ও জারিনা ওহাবের দাম্পত্য জীবন৷ জারিনা আদিত্যের চেয়ে ছয় বছরের বড় হল জারিনা৷

৪) সাইফ আলি খান এবং অমৃতা সিং: অমৃতা সিং তখন বলিউডে তারকা হয়ে গেছেন সেই সময় তিনি প্রেমে পড়েন বয়সে অনেক ছোট সাইফ আলি খানের৷ ১৯৯১ সালে যখন দু’জনে বিবাহ বন্ধনে বাঁধলেন তখন অমৃতার বয়স ৩৩ এবং সাইফের ২১৷ তবে ২০০৪ সালে তাদের ১৩ বছরের দাম্পত্য জীবনে ইতি ঘটে। পরবর্তীকালে সাইফ বিয়ে করেন কারিনা কাপুরকে৷

৫) অর্চনা পূরণ সিং এবং পারমিৎ শেঠি: প্রথম বিয়ে ব্যর্থ হওয়ার পর অর্চনা পূরণ সিং -এর সঙ্গে হঠাৎ পরিচয় হয়েছিল তাঁর থেকে সাত বছরের ছোট পারমিৎ শেঠির৷ দুজনার ঘনিষ্ঠতা থেকে লিভ-ইন করা শুরু৷ এভাবে চার বছর কাটার পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নিলেন তারা৷ তারপরে একসঙ্গে কেটে গেছে ২০ বছর।

৬) অর্জুন রামপাল ও মেহর জেসিয়া: ১৯৯৮ সালে বলিউড অভিনেতা অর্জুন রামপাল এবং মডেল মেহের জেসিয়া বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়ে কাটিয়ে দিলেন এতগুলো বছর৷ মেহের অর্জুনের চেয়ে দু’বছরের বড়।

৭) রাজ কুন্দ্রা ও শিল্পা শেঠি: বলিউডের শিল্পা শেঠির চেয়ে তিন মাসের ছোট তাঁর স্বামী রাজ কুন্দ্রা৷ শিল্পার পারফিউম এসটু (S2) বাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে আনার সময় বলিউডের এই নায়িকার সঙ্গে আলাপ হয় রাজের৷ সেই থেকে তাঁরা দু’জনে প্রেমে পড়েন এবং সেই প্রেম থেকেই অবশেষে ২০০৯ সালের ২২ নভেম্বরে বিয়ে পর্যন্ত গড়ায় সম্পর্ক৷

৮) করণ বিপাশা: সদ্য বিয়ে হওয়া করণ সিং গ্রোভার এবং বিপাশা বসুও এমনই ব্যতিক্রমী দম্পতি ৷ ২০১৬ সালে যখন তাদের বিয়ে হয় তখন বিপাশার বয়স ৩৮ এবং করণের ৩৪৷ শোনা যায় এই বয়েসের কারণেই করণের মায়ের আপত্তি ছিল এই বিয়েতে কিন্তু পরে তিনিও মেনে নেন৷

৯) ফারহান আখতার এবং আধুনা ভবানী আখতার: পরিচালক তথা অভিনেতা ফারান আখতার বিয়ে করেন আধুনা ভবানী যিনি তার চেয়ে ছয় বছরের বড় ৷ দিল চাহতা হ্যায় ছবির চিত্রনাট্য লেখার সময় ফারহানের সঙ্গে আধুনার পরিচয় হয়েছিল এবং ২০০০ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা৷ কিন্তু ২০১৬ থেকে তাঁরা দু’জনে আলাদা থাকছেন ৷ তবে তাদের ডিভোর্স এখনো ঝুলে রয়েছে।

১০) কুণাল ঘেমু ও সোহা আলি খান: অভিনেতা কুণাল ঘেমু বিয়ে করেন তাঁর থেকে পাঁচ বছরের বড় সোহা আলি খানকে৷ ২০০৯ সালে একসঙ্গে ‘ঢুঁনডথে রেহ জাওগে’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে তাদের প্রেম জাগে৷ তখন থেকেই তাঁরা তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে দেখা যায়৷ এরপর দু’বছর ধরে লিভ-ইন করার পর ২০১৪ সালে প্যারিসে কুণাল প্রস্তাব দেন সোহাকে এবং ২০১৫ সালে বিয়ে করেন তারা৷

১১) ফারহা খান এবং শিরিষ কুন্দের: ফিল্ম এডিটর থেকে পরিচালকে পরিণত হওয়া শিরিষ কুন্দের তাঁর স্ত্রী ফারহা খানের চেয়ে আট বছরের ছোট৷ শিরিষ ছিলেন ফারহা পরিচালিত প্রথম ছবি ‘ম্যায় হু না’-তে এডিটর৷ সেই সেট থেকে তাদের বন্ধুত্ব প্রেমে পরিণত হয়৷ এরপরে ২০০৪ সালে তাঁরা দু’জনে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন৷ আপাতত দুই মেয়ে এবং এক ছেলে নিয়ে আপাতত সুখেই কাটছে তাদের জীবন।

১২) ধানুশ ঐশ্বরিয়া: আবার দক্ষিণী সুপারস্টার ধানুষের চেয়ে তারঁ স্ত্রী ঐশ্বরিয়া (রজনীকান্তের মেয়ে) দু’বছরের বড় ৷ ২০০৪ সালে তাদের বিয়ে হয়েছে এখনো একসঙ্গে।-কলকাতা






মন্তব্য চালু নেই