মেইন ম্যেনু

সৌদিতে শপিংমলে বিদেশিদের চাকরি নিষিদ্ধ

সৌদি আরবের শপিং মলগুলোতে প্রবাসীরা চাকরি করতে পারবেন না- এই মর্মে নির্দেশিকা জারি করেছে সৌদি প্রশাসন।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার দেশের নাগরিকদের দীর্ঘমেয়াদী প্রকল্পের অংশ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

এই সিদ্ধান্ত কা‌র্যকর হলে কয়েক হাজার বাংলাদেশি শ্রমিক বেকার হয়ে পড়বে। অন্যদিকে দেশটির নাগরিকদের জন্য ১৫ লাখ কর্মসংস্থান তৈরি হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

তবে রাতারাতি কর্মরত ব্যক্তিদের কর্মচ্যুত করবে না, চাকরিরত শ্রমিকদের সঙ্গে সংস্থার চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে পুনঃচুক্তি করা ‌যাবে না- এমনটাই জানিয়েছেন দেশটির শ্রম দপ্তরের মুখপাত্র খালেদ আবাল খাইল। এই প্রক্রিয়া কবে থেকে শুরু হবে, তাও বাজারের পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে।

সৌদি আরব তেল নির্ভর অর্থনীতি ছেড়ে বের হওয়ার জন্য দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা চালাচ্ছে। সেজন্য দক্ষ শ্রমিক তৈরির ওপর জোর দিচ্ছে সে দেশের রাজপরিবার।

সৌদি আরবে গত ত্রৈমাসিকে বেকারত্বের হার ছিল ১২ দশমিক ৩ শতাংশ, যা গত বছরের তুলনায় দশমিক ৮ শতাংশ বেড়েছে। মহিলাদের ক্ষেত্রে এই হার ৩৪ দশমিক ৫ শতাংশ।

সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র খালিদ আবাল খাইল টুইটারে শপিং সেন্টারগুলোতে শুধু সৌদি নারী ও পুরুষের কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। শপিং মলগুলোর ভেতরে নারীদের পোশাকের দোকানগুলোতে নারী বিক্রয়কর্মী নিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছে।

২০৩০ সাল নাগাদ সৌদি নাগরিকদের বেকারত্বের হার ১১ দশমিক ৬ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৭ শতাংশে নামিয়ে আনার যে লক্ষ্য সৌদি সরকারের রয়েছে, সেই বিষয়টি মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সৌদি ভিশন-২০৩০ অনুযায়ী, খুচরা দোকানগুলোতে ১৫ লাখ শ্রমিক রয়েছে। এদের মধ্যে মাত্র ৩ লাখ সৌদি নাগরিক। সৌদি ভিশন- ২০৩০ এর আওতায় ‘ন্যাশনাল ট্রান্সফরম্যাশন প্রোগ্রাম (এনটিপি)’র অধীনে সৌদি আরব ২০২০ সাল নাগাদ বেসারকারি খাতে সাড়ে ৪ লাখ সৌদি নাগরিকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে চাইছে।






মন্তব্য চালু নেই