মেইন ম্যেনু

সেরার লড়াইয়ে ইরান ও পাকিস্তান, কাহিনী শুনলে অবাক হবেন

বিষয়টি অন্য ভূবনে নিয়ে যেতে সকলকে। সেরার লড়াইয়ে ইরান ও পাকিস্তান, কাহিনী শুনলে অবাক হবেন। কেননা তার সুপার হিরো হাল্কের মতো শরীর, শক্তিও অসাধারণ! ২৪ বছর বয়সী ইরানের সাজাদ গারিবি ভার উত্তোলক।

প্রায় ৩৬০ কেজি ওজন ও সুঠাম মাংসপেশির এই যুবককে বলা হচ্ছে ‘ইরানি হাল্ক’। কেউ কেউ তাকে ‘হারকিউলিস’ বলেন। ১৭৫ কেজি ভার উত্তোলন করতে পারেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়া ইনস্টাগ্রামে তার দেড় লাখ ফলোয়ার।

তবে তার চেয়েও আরো বিশালদেহী আরেকজন রয়েছেন পাকিস্তানে। আরবাব খিজির হায়াত নামে এই পাকিস্তানি হাল্কের ওজন কত জানেন? ৪৩৬ কেজি। পরিচিতরা তাকে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী মানুষ মনে করেন। সবার কাছে তিনি ‘খান বাবা’ নামে পরিচিত। এক হাতে চলন্ত গাড়ি আটকে রাখা তার কাছে নস্যি। শুধু তাই নয়, সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, জাপানে কয়েক বছর আগে এক ভার উত্তোলন প্রতিযোগিতায় তিনি নাকি পাঁচ হাজার কেজি উত্তোলন করতে সক্ষম হয়েছিলেন!

২৫ বছর বয়সী খান বাবা বলেছেন, ১৮ বছর বয়স থেকেই তার শরীর দ্রুত বাড়তে থাকে। সে সময় থেকেই তিনি প্রচুর ক্যালরিপূর্ণ খাবার খাওয়া শুরু করেন। প্রতিদিন নাকি ১০ হাজার ক্যালরির খাবার খান তিনি। তার প্রতিদিনের খাবার মেন্যু শুনবেন? সকালের নাশতায় তিনি খান ৩৬টি ডিম। এ ছাড়া প্রতিদিন দুপুর ও রাতে চারটি মুরগি, তিন কেজি গরুর গোশত ও পাঁচ লিটার দুধ পান করেন। ছয় ফুট তিন ইঞ্চি উচ্চতার এই বিশালদেহী মানুষটি নাকি রোগে আক্রান্ত হননি তেমন। ওজন নিয়ে অস্বস্তিও নেই তার। তবে গাড়িতে উঠতে নাকি অসুবিধা হয়।

খান বাবা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানা গেলেও ইরানের সাজাদ গারিবির তথ্য তেমন জানা যায়নি। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দু’জনের ছবি এবং সংবাদ প্রকাশের পর আলোচনা শুরু হয়- কে সেরা? অনেকে তো মন্তব্য করছেন, দু’জনকেই রেসলিংয়ের মঞ্চে তুলে দেয়া হোক। এতে অবশ্য খান বাবার স্বপ্নপূরণ হবে। কারণ রেসলিং প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া তার বহু দিনের স্বপ্ন।






মন্তব্য চালু নেই