মেইন ম্যেনু

সুপ্রিম কোর্টের ভাস্কর্য সরানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত প্রধান বিচারপতির

সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে রোমান যুগের ন্যায়বিচারের প্রতীক ‘লেডি জাস্টিস’র আদলে স্থাপিত ভাস্কর্যটি সরানোর বিষয়ে প্রধান বিচারপতিই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

তিনি বলেন, ভাস্কর্যটি আমাদের জানিয়ে স্থাপন করা হয়নি। এটি অপসারণের বিষয়ে প্রধান বিচারপতিই সিদ্ধান্ত নেবেন।

মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক শ্রম আইন বিষয়ে বিচারকদের নিয়ে আয়োজিত এক কর্মশালার উদ্বোধনী শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী। বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষক ইন্সটিটিউট এ কর্মশালার আয়োজন করে।

এরআগে এ ভাস্কর্যটি সরানোর বিষয়ে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আইনমন্ত্রী জানান, এ ভাস্কর্য ঘিরে যেন কোনো ধরনের অরাজকতা তৈরি না হয় সে বিষয়েও সতর্ক থাকতে হবে।

১৭ এপ্রিল এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ‘কোনো ধরনের আলোচনা ছাড়াই সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে এ ধরনের ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়েছে। ন্যায়বিচারের প্রতীক গ্রিক দেবী থেমিসের ভাস্কর্য বানালেও সেটিকে আবার শাড়ি পরানো হয়েছে।’

গ্রিক দেবী কি শাড়ি পরতো না কি- এমন প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ভাস্কর্যটি এমনভাবে স্থাপন করা হয়েছে যে জাতীয় ঈদগাহে নামাজ পড়া অবস্থায় চোখে পড়ে। এটি আসলেই দর্শনীয় কোনো ভাস্কর্য নয়।’






মন্তব্য চালু নেই