মেইন ম্যেনু

‘সানি আমাকে আদর করে মুন ডাকত’

ক্রিকেটার আরাফাত সানি এবং তার স্ত্রী দাবিদার নাসরিন সুলতানার মধ্যে আপস মীমাংসার চাপ বেড়েছে। দুই পরিবারই আপস করতে চাচ্ছেন। একই সাথে নাসরিনকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। এ সব তথ্য জানিয়েছেন নাসরিন। নাসরিন সোমবার রাতে এবং মঙ্গলবার সকালে একাধিকবার টেলিফোনে বলেন, সানির ইকোনমিক জোর অনেক। তাছাড়া নানান দিক থেকে চাপ দেওয়া হচ্ছে।

সানির মা রোববার এবং মঙ্গলবার একাধিকবার তার (নাসরিনের) মাকে ফোন করে মামলা তুলে নিতে অনুরোধ করেছেন। এতে করে তার পরিবারও চাপ অনুভব করছে।

নাসরিন বলেন, আমার একজনের জন্য এখন সমস্ত পরিবার অনিরাপদ ও সমস্যায় আছে। সে ক্ষেত্রে তার মা-বাবা ও আত্মীয়স্বজন সবাই মামলা তুলে নিতে চাপ দিচ্ছে বলে জানান নাসরিন।

তিনি বলেন, এখন কী করব বুঝতে পারছি না। তাদের বিষয়টা অনেকটা বিনা শর্তে মামলা তুলে নেওয়ার মতন। এতে করে আমার সব-ই যাবে, মামলাও উঠবে, আমিও কিছু পাবো না আর সমাজে আমি খারাপ হবো- আক্ষেপ করে বলেন নাসরিন।

এদিকে নিম্ন আদালত এবং তদন্ত কর্মকর্তাদের সূত্রে জানা গেছে, ক্রিকেটার সানির বিরেুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলাটির প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। সানি তার নিজস্ব সেল ফোন নম্বর ব্যবহার করে নাসরিনের নামে ফেইসবুক আইডি খুলেছিল। সে আইডিতে নাসরিনের যেসব ছবি সেগুলোও সানির মোবাইল ফোন সেট থেকে তোলা। সে সব ছবি সানির কাছেই কেবল সংগৃহিত ছিল। যে সেল ফোন নম্বর থেকে আইডিটি খুলেছিল সেটি সানি নিয়মিত ব্যবহার করতো। তদন্ত কর্মকর্তারা সানি এবং নাসরিন দুজনেরই মোবাইল ফোন সেট জব্দ করেছে।

এছাড়া সানি এবং নাসরিনের থাইল্যান্ড যাওয়ার বিমানের বোর্ডিং পাস, হোটেল রিজার্ভেশনের তথ্য প্রমাণ পরিবর্তন ডটকমের হাতে এসছে। তারা ব্যাংককের অ্যালোক এবং ফুকেটের সানসাইন হোটেলে অবস্থান করেন।

তবে আদালতে নাসরিনের পক্ষ থেকে দাখিল করা কাবিননামার সত্যতা পাওয়া যাচ্ছে না কেন জানতে চাইলে নাসরিন বলেন, দীর্ঘ দিন বিয়ে করতে টালবাহানা করে সানি। অবশেষে যখন বিয়ে করতে রাজী হয় তখন সে বিয়ের আয়োজনে কেবল সানির কয়েকজন ঘনিষ্ট বন্ধু ছিল। তাদের মধ্যে কোনো ক্রিকেটার ছিল না। বিয়ে হওয়ার পর যখন বিয়ের দালিলিক প্রমাণ চাওয়া হয় তখন সানি একটি কাবিননামা দেয়।

নাসরিন বলেন, সে কাবিননামা ভুয়া না সত্য তা যাছাই বাছাইয়ের তার সুযোগ ছিল না।

নাসরিন বলেন, কাবিননামা সম্পর্কে প্রশ্ন ওঠার পর অনেকেই তাকে বলেছেন, এই কাবিননামা ভুয়া হয়ে থাকলে এ পরিপ্রেক্ষিতে সানির বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করতে।

মঙ্গলবার সাকলে নাসরিন বলেন, তিনি সব সময় আপস চেয়েছেন। এখনও সানি বা সানির পরিবার যদি তাকে গ্রহণ করে তাহলে আপনি কী করবেন জানতে চাইলে নাসরিন বলেন, আমি তো সবসময়ই এটা চেয়েছি। এখনও চাই।

তিনি জানান, তিনি সানিকে ফিল করেন। তবে বাস্তবতা অনেক কঠিন হয়ে উঠছে।

নাসরিন জানান, সানি গ্রেফতার হওয়ার আগের রাতেও তাদের দুজনের কথা হয়। সে সময়ও নাসরিনকে সানি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, দরকারে তিন মাস জেল খাটবে সে, যা ইচ্ছা তা করুক নাসরিন।

এই তরুণী আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, তাকে আমি সানি বলেই ডাকতাম, সে আমাকে আদর করে চাঁদের সাথে তুলনা করে মুন নামে ডাকতো।

ক্রিকেটার আরাফাত সানিকে আইসিটি আইনের মামলায় রোববার থেকে জেল খাটতে হচ্ছে তার নাসরিন আখতারের করা মামলায়।

আরাফাত সানির আইনজীবী জুয়েল আহমদ কাছে বলেন, নাসরিন সুলতানের সমস্ত বক্তব্য ও অভিযোগ মিথ্যা। বিষয়টি আইনিভাবে মোকাবিলা করা হচ্ছে।-পরিবর্তন






মন্তব্য চালু নেই