মেইন ম্যেনু

সানির কেলেঙ্কারির দায় নেবে না বিসিবি

জাতীয় দল যখন নিউজিল্যান্ড সফরে ব্যস্ত সময় পার করছে, তখন তিনি দেশের মাটিতে পরিবারের সঙ্গে দারুন সময় কাটচ্ছিলেন ক্রিকেটার আরাফাত সানি। কিন্তু, হঠাৎ এক ঝড় তার সব কিছু এলোমেলো করে দিয়েছে। রোববার (২২ জানুয়ারি) বান্ধবীর করা দায়ের করা তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন জাতীয় দলের এই বোলার। বাঁহাতি এই স্পিনারকে একদিন পুলিশ রিমান্ডে রাখার অনুমতিও দিয়েছেন আদালত। সানি সত্যি অপরাধ করে থাকলে কোনো ভাবেই তার দায় নেবে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

সানির গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমরা যতটুকু শুনেছি তাঁর সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে কিছুটা ঝামেলা হয়েছে। তাই মামলা হয়েছে, তারই ধারাবাহিকতায় সানিকে গ্রেপ্তার করা হয়। এটা তাঁর ব্যক্তিগত ব্যাপার। আপাতত এ বিষয়ে বিসিবির করণীয় কিছু নেই।’

আরাফাত সানির পরিবার থেকে বিসিবির সাথে এখন পর্যন্ত যোগাযোগ করা হয়নি জানিয়ে বিসিবির এই পরিচালক বলেন, ‘তার পরিবার থেকে কেউ এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে কিছু বলেনি। তাদের নিজেদের অবস্থান নিজেদের বুঝতে হবে, তারা কোথায় আছে সেটা মাথায় রাখা উচিত। কার কি ক্ষতি হতে পারে এসব তাদের বোঝা উচিত।’

পরিবার থেকে যোগাযোগ করা হলে সেক্ষেত্রে বিসিবির অবস্থান কেমন হবে? এমন প্রশ্নের জবাবে জালাল ইউনুস বলেন, ‘বিসিবি তো বাসায় গিয়ে বলে দেবে না কিভাবে চলতে হবে। এসব বিসিবির কাজ নাকি? তারা জানে কিভাবে চলাফেরা করা উচিত। বিসিবির এখানে কিছু বলার নেই। বিসিবির কাছে তারা আসে। আমরা তো তাদের কাছে যাব না।’

এদিকে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন জানান, সানি যদি কোনোভাবে দোষি প্রমাণিত হয়, তাহলে কোনোভাবেই তার পাশে থাকবে না বোর্ড।

গত বছর মার্চে কলকতায় পাকিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন আরাফাত সানি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সেই ম্যাচ খেলার পর আর দলে জায়গা পাননি তিনি।






মন্তব্য চালু নেই