মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরার আশাশুনিতে মা ও শিশুর এক রশিতে আত্মহত্যা

দেড় বছরের সন্তানকে গলায় রশি দিয়ে ঝুলিয়ে একই দড়িতে মা আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সাতীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার উত্তর একসরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গৃহবধু হলেন পারভিন খাতুন (২৪)। সে আশাশুনি উপজেলার উত্তর একসরা গ্রামের বেল্লাল গাজীর স্ত্রী। শিশুটির নাম রুপা খাতুন। আনুলিয়া ইউনিয়ন ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন জানান, প্রথম স্ত্রীর কথা গোপন রেখে উত্তর একসরা গ্রামের দীন আলী গাজীর ছেলে বেল্লাল গাজী খুলনার দাকোপ উপজেলার নলিয়ান গ্রামের পরভিন খাতুনকে চার বছর আগে বিয়ে করে। বিয়ের বছর খানেক পর প্রথম স্ত্রী জহিরুন্নেছার সঙ্গে পারভিনের বিরোধ চরমে ওঠে। এরপর থেকে প্রথম স্ত্রী তার স্বামীকে নিয়ে সাতীরায় এসে বাসা ভাড়া করে থাকতে শুরু করে। ফলে পারভিনের দিন কাটতো অনাহারে অর্ধাহারে। বাচ্চার জন্য দুধ কেনার টাকা চাওয়ায় সোমবার বিকেলে বেলাল তার দ্বিতীয় স্ত্রী পারভিনকে মারিপট করে সাতীরায় চলে আসে। এরপর মঙ্গলবার সকাল ৯টায় পুলিশ শিশু ও পারভিনের গলায় দড়ি অবস্থায় ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে। আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহসান হাবিব ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। অভাব এবং মনোকষ্টে আতœহত্যা করে থাকতে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই