মেইন ম্যেনু

সাকিববিহীন কলকাতার আয়েশি জয়

সাকিব আল হাসানকে ছাড়াই ‘ম্যাড ম্যাক্স’ (গ্লেন ম্যাক্সওয়েল) এর কিংস ইলাভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে বড় জয় পেয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।
রোববার কটকে উইকেটের ২২ গজে ভারতীয় স্পিনার পিযুষ চাওলা ও মরনে মরকেলদের দুরন্ত বোলিংয়ের পর ব্যাট হাতে গৌতম গাম্ভীরের ধারাবাহিক উচ্ছ্বাস ও রবিন উথাপ্পার টনিক ইনিংসে নয় উইকেটের বড় জয় পেয়েছে শাহরুখ খানের মালিকানাধীন দলটি। তাও ইনিংসের ১২টি বল বাকি থাকতেই।

আগের দিন কলকাতার সবচেয়ে কিপ্টুস বোলার ছিলেন সাকিব আল হাসান। চার ওভারে মাত্র ১৩টি রান দিয়েছিলেন তিনি। তাছাড়া গুরুত্বপূর্ণ সময়ে কলকাতার পক্ষে একটি উইকেটও পেয়েছিলেন বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। কিন্তু তারপরেও রোববারের ম্যাচে সাকিবের বাদ পড়াটা বড় বিস্ময় হিসেবে এসেছিল ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে। যদিও রোববার মাঠের খেলায় এটা খুব বেশি প্রভাব ফেলেনি।

এদিন টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন গাম্ভীর। ফলে প্রথমে ব্যাট করতে নামে পাঞ্জাব। কিন্তু ইনিংসের শুরুতেই উইকেট হারায় তারা। যদিও চালিয়ে ব্যাট করতে থাকেন রান খরায় ভুগতে থাকা বিরেন্দ্রর শেবাগ। শেষ পর্যন্ত নিজ দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭২ রানের ইনিংসও খেলেন বীরু। তাও মাত্র ৫০ বলেই। কিন্তু ক্রিকেটে ‘লাকি চার্ম’ বলে একটা কথা আছে। তাই গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও ডেভিড মিলারের ব্যাট না হাসায় খুব বেশি দূর এগুতে পারেনি প্রীতি জিনতার দল। নির্ধারিত ২০ ওভারে তারা আট উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রান সংগ্রহ করে। যখন ম্যাক্সওয়েল ১৪ আর মিলার ১৩ রান করেন। কেকেআরের পক্ষে তিনটি উইকেট নেন চাওলা। দুটি উইকেট গেছে মরকেলের দখলে।

এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে আগের দুই দিনের মতো এদিনও ভালো সূচনা পায় কলকাতা। গৌতম গাম্ভীর আর রবিন উথাপ্পার উদ্বোধনী জুটিতে সাত ওভারেই আসে ৬৮ রান। যখন মাত্র চার রানের জন্য অর্ধ শতক মিস করেন কেরালার ব্যাটসম্যান উথাপ্পা। তবে গাম্ভীর যথারীতি সপ্রতিভ ছিলেন। আগের দুই ম্যাচের ন্যায় এদিনও হাফ সেঞ্চুরি পেয়েছেন দিল্লির ব্যাটসম্যান। তাতে নয় উইকেটের বড় জয় পায় কলকাতা। গাম্ভীর ৪৫ বলে ৬৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। তাকে যোগ্য সঙ্গত দেন মনিষ পাণ্ডে। তার ব্যাটে এসেছে ৩৬ রান। পাঞ্জাবের পক্ষে একমাত্র উইকেটটি পান প্রবিন্দর আওয়ানা।

প্রসঙ্গত, এই জয়ের ফলে প্লে-অফ খেলার সম্ভাবনা জিইয়ে থাকলো কলকাতার। শাহরুখ খানের দল নয়টি ম্যাচ খেলে চারটিতে জয় পেয়েছে। পয়েন্ট টেবিলের চার নাম্বারে তারা।হারার পরও অবশ্য সবার শীর্ষে পাঞ্জাবই। দুইয়ে ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। তিন শেন ওয়াটনসের রাজস্থান রয়েলস।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই