মেইন ম্যেনু

সম্পর্ক সুদৃঢ় হবে, তিস্তায় আসবে পানি : পঙ্কজ শরণ

নরেন্দ্র মোদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে। সমাধান হবে তিস্তাচুক্তির। পানি আসবে তিস্তায়।

শুক্রবার সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কুমুদিনী কমপ্লেক্স পরিদর্শনকালে এ কথা বলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ।

এর আগে বেলা সাড়ে এগারটার দিকে হাইকমিশনার ও তার মা মিসেস প্রমিলা ভাটন কুমুদিনী কমপ্লেক্সে পৌঁছলে কুমুদিনী পরিবারের সদস্যরা তাদের ফুল দিয়ে সংবর্ধনা জানান।

সংবর্ধনার পর হাইকমিশনার কুমুদিনী লাইব্রেরী মিলনায়তন, কুমুদিনী হাসপাতাল, নার্সিং স্কুল ও কলেজ, ভারতেশ্বরী হোমস, ভারত সরকারের দেয়া পাওয়ার প্লান্ট ও বর্জ্য শোধনাগার, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ এবং কুমুদিনী পরিবারের বিভিন্ন সেবাধর্মী ইউনিটি ঘুরে দেখেন।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে পঙ্কজ শরণ বলেন, ‘ভারতের নতুন সরকার গঠনের পর বাংলাদেশ-ভারতের ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার আরও বাড়বে, রাজনৈতিক টানাপোড়ন থাকবেনা, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ভিত আরও মজবুত হবে।’

কুমুদিনী হাসপাতালের সেবার মান সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘তাদের সেবা নিয়মানুবর্তিতা, শিক্ষা ও সাংস্কৃতির চর্চা দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে এ প্রতিষ্ঠানকে সবধরনের সহযোগিতা করা হবে।’

এ সময় টাঙ্গাইল জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক গৌতম চন্দ্র পাল, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আফরোজা আকতার চৌধুরী, সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাসরিন সুলতানা, কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক শ্রী মতি সাহা, ডা. দুলাল চন্দ্র পোদ্দার, ডা. প্রদীপ কুমার রায়, ডা. এমএ জামান, ভারতেশ্বরী হোমসের প্রিন্সিপাল প্রতিভা হালদার, উপাধ্যক্ষ গোলাম কিবরিয়া, উলফাতুন-নেসা ও সহকারি প্রশাসক সৈয়দ হায়দার আলী উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই