মেইন ম্যেনু

সকল অভিবাসীকে স্বাগত জানালেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো শনিবার এক টুইটার বার্তায় সবধরণের অভিবাসীকে তার দেশে স্বাগত জানিয়েছেন। এর মাধ্যমে তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নীতির সম্পূর্ণ বিপরীত অবস্থান নিলেন। ট্রাম্প শরণার্থী ও মুসলিম কয়েকটি দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে সফরের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।

টুইটার বার্তায় ট্রুডো লিখেন, ‘যারা জীবন বাঁচাতে নিপীড়ন, সন্ত্রাস ও যুদ্ধ থেকে পালিয়ে আসছেন, জাতি, ধর্ম নির্বিশেষে কানাডিয়ানরা তাদেরকে স্বাগত জানাচ্ছে। বৈচিত্র্যই আমাদের শক্তি।’

ট্রাম্প অন্তত ১শ ২০ দিনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে শরণার্থীদের প্রবেশ বন্ধে এবং ইরান, ইরাক, লিবিয়া, সুদান, সোমালিয়া, সিরিয়া ও ইয়েমেনর নাগরিকদের আগামী তিন মাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করে একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করার একদিন পর ট্রুডো এ বার্তা দিলেন।

ট্রাম্পের ওই নির্বাহী আদেশের পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বিমানগুলোতে ওই দেশগুলোর নাগরিকদের নেয়া হচ্ছে না।
এ প্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাপী ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে এবং বিমানবন্দরগুলোতে ওই দেশগুলোর নাগরিকরা আটকা পড়েছে।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, যারা ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশ স্বাক্ষরের সময় বিমানে আকাশে অবস্থান করছিলেন, অবতরণের পর তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

ট্রুডোর মুখপাত্র কেট পারচেজ বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত করেছি যে কানাডার পাসপোর্ট নিয়ে ভ্রমণকারী নাগরিকরা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই এদেশে প্রবেশ করতে পারবেন।’

সরকারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, কানাডা ২০১৫ সালের নভেম্বর ও চলতি বছরের জানুয়ারি মাসের মধ্যে ৩৯ হাজার ৬শ’ ৭০ জনের বেশি সিরীয় শরণার্থীকে গ্রহণ করেছে।






মন্তব্য চালু নেই