মেইন ম্যেনু

শিল্পকলার সামনে এ কোন ‘ময়লা শিল্প’!

আজকাল রাজধানীর সেগুন বাগিচায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পাশ দিয়ে যারা যাওয়া আসা করেন তাদের একটি অপ্রীতিকর জিনিসের মোকাবেলা করতে হয়। তা হলো শিল্পকলার গেট লাগোয়া ময়লার স্তুপ। জাতীয় একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান কেন্দ্রের প্রধান গেটেএর কারণে পরিণত হয়েছে উৎকট বমি ধরানো গন্ধের উৎসস্থল হিসেবে। আর সেই ময়লার স্তুপেআর গন্ধ পেরিয়েই কিনা যেতে হয় নাটক দেখার টিকিট কাটার জন্য!

এই গেট দিয়েই যাতায়াত করেন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা, বিশিষ্ট অতিথিরা।

শিল্পকলার সামনে এমন ময়লার স্তুপ দেখে কেউ কেউ অবাক হলেও যাদের এটা নিয়ে তৎপর হওয়ার কথা- তারা হয়েতো বুঝছেন না। তবে এমন বিষয় দেখে শিল্কলায় আসা কেউ কেউ আবার মজা করতেও ছাড়ছেন না। বুধবার বিকালে একজনকে বলতে শুনলাম- শিল্পকলার সামনে কোন ধরনের শিল্প এটি! সঙ্গে সঙ্গে তার সঙ্গের লোকটি বলে উঠেন- বুঝলেন না! এটি ময়লা শিল্প!

এমন রসিক মন্তব্য বিষয়ে প্রশ্ন করলে এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, যারা এমন কর্মটি করেছেন আর যারা এটা এখানে চলতে দিচ্ছেন তাদের কাণ্ডজ্ঞানের কথা ভেবে অবাক না হয়ে পারি না।

স্থানীয় কয়েকজন জানালেন, ৫-৭ দিন আগে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ভবনের উল্টোদিকে অবস্থিত শিল্পকলা একাডেমির গেটের কাছে স্তুপ করে ময়লা রেখে যায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের লোকজন। তবে ওই সময় কেউ কেউ বাধাও দিয়েছেন। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি তাতে। ময়লাওয়ালারা ছিল শক্তিশালী পক্ষ!

ঘটনাস্থলে উপস্থিত সেগুনবাগিচা এলাকার বাসিন্দা নিয়ামত আলীকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, সংস্কৃতি প্রেমিদের একটি মিলনকেন্দ্র শিল্পকলা একাডেমি। প্রতিদিন একাডেমি অঙ্গন শিল্পী, নির্দেশক, দর্শকদের উপস্থিতিতে সরগরম থাকে। আর সেই শিল্পকলার সামনে এমনভাবে ময়লা রাখা হয়েছে যা দেখে অবাক না হয়ে পারছি না। তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ময়লাগুলো যেদিন রাখে সেদিন কয়েকজন নিষেধ করেছিল। কিন্তু কে কার কথা শোনে! ময়লা রেখে চলে যায় তারা।






মন্তব্য চালু নেই