মেইন ম্যেনু

শত্রুতা নয়, ভারতের সাথে বন্ধুত্বের হাত বাড়ালো পাকিস্তান

বছরজুড়ে একে-অন্যকে দোষারোপ করা ছাড়াও সরাসরি বাক-যুদ্ধ থেকে সামরিক যুদ্ধের প্রস্তুতি পর্যন্ত পৌঁছে ছিল ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্ক। কিন্তু হঠাৎ সেই শত্রুটা থেকে বেরিয়ে এসে যেন এক প্রকার বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিলো পাকিস্তান।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের আগেই ভারতে ফিরলেন ভারতীয় সেনা চান্দু বাবুলাল চৌহান। শনিবার ওয়াঘা- আটারি সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করেন তিনি। তাকে ফিরিয়ে দিয়েছে পাকিস্তান সরকার। গত ৱছর অসাবধানতাবশত ভারত-পাকিস্তান নিয়ন্ত্রণরেখা পার করে ফেলেন ওই ভারতীয় সেনা জওয়ান। তারপরেই বাবুলালকে বন্দি করেছিল পাকিস্তানী সেনা।

শনিবার পাকসেনার জনসংযোগ বিভাগ ইন্টার সার্ভিসেস পাবলিক রিলেশনস চান্দু বাবুলাল চৌহানকে ফেরত পাঠানোর কথা জানান। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে , মানবিকতার কারণেই তাকে ফেরত দেওয়া হচ্ছে। জানানো হয়েছিল লাহোরের ওয়াঘা সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় সীমান্তে পাঠানো হবে চান্দু বাবুলালকে। সেইমতো পাঞ্জাবের আটারি সীমান্ত দিয়েই ভারতে ফিরলেন ভারতের রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ওই সেনা জওয়ান।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সূত্রের খবর, পাকিস্তানের কাছ থেকে ফেরত পাওয়া ভারতীয় সিপাই বাবুলালের বিশেষ মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হবে আজ-কালের মধ্যেই। বাবুলালের বাড়ি মহারাষ্ট্রের ধুলে জেলার বরভিহির গ্রামে।

ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন ভারতীয় সেনাবাহিনীর ৩৭ নম্বর রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ২২ বছর বয়সী বাবুলাল ভুল করে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে যাওয়ায় পাক সেনাবাহিনীর হাতে ধরা পড়েছিলেন।

পাকিস্তানের ‘ইন্টার-সার্ভিসেস পাবলিক রিলেশন্স’ (আইএসপিআর)-এর তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘নিয়ন্ত্রণরেখায় শান্তি বজায় রাখতে সৌজন্যের খাতিরেই আটক ভারতীয় সেনা বাবুলালকে ফিরিয়ে দেওয়া হল ভারতে।’

আইএসপিআর-এর ওই বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে যে, ‘ভারতীয় সেনাবাহিনীর ৩৭ নম্বর রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের কম্যান্ডারদের সঙ্গে মনোমালিন্যের জেরে নিজের ইচ্ছাতেই চান্দু ২৯ সেপ্টেম্বর নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ঢুকে পড়েছিলেন পাকিস্তান সীমান্তের ভিতরে। তারপর তিনি আত্মসমর্পণ করেছিলেন পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর কাছে।’






মন্তব্য চালু নেই