মেইন ম্যেনু

১০০ দিনের মধ্যে কাজের লক্ষ্যমাত্রা স্থির

লালবাতি ছাড়াই বৈঠকে এলেন হাইপ্রোফাইল মন্ত্রীরা

দিলীপ মজুমদার,(কলকাতা): শপথের পরের দিনই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের দিনে আঠারো ঘণ্টা কাজের লক্ষ্যমাত্রা বেধে দিয়েছিলেন। নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে আজ দ্বিতীয় বার বৈঠকে বসেছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা৷ মন্ত্রিসভার এই দ্বিতীয় বৈঠকে মন্ত্রীদের সামনে তিনটি লক্ষ্য নির্ধারণ করে দিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সুশাসন, মানুষের কাছে পরিষেবা পৌছে দেওয়া ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

প্রত্যেক মন্ত্রীকে প্রথম একশো দিনের মধ্যে নিজের মন্ত্রকের কাজের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করতে হবে। আগের সরকারের আমলের যেসমস্ত কাজ এখনও পড়ে রইছে অগ্রাধিকার দিয়ে তা শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। অগ্রাধিকার দিতে হবে বিভিন্ন রাজ্যের কাছ থেকে আসা চিঠিগুলিকেও। প্রত্যেক মন্ত্রীকে তাঁর দফতরের প্রতিমন্ত্রীদের যথেষ্ট কাজ দিতে হবে।
এদিকে, লালবাতি ছাড়া গাড়িতে বৈঠকে হাজির হন অরুণ জেটলি, নীতিন গড়কড়ী, স্মৃতি ইরানি, মেনকা গান্ধীরা। এদিকে আগামী ৪ঠা জুন থেকে লোকসভার অধিবেশন শুরু হবে৷ চলবে ১২ জুন পর্যন্ত৷ সূত্রের খবর,৬ জুন স্পিকার নির্বাচবনের প্রস্তাব দিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা৷ আর ৯ জুন ভাষণ দেবেন রাষ্ট্রপতি, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার আজকের বৈঠকে সিদ্ধান্ত।

এছাড়াও মোদীর নির্দেশনামা- ১) কোনও রাজ্য সরকার কিছু বললে,তাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
২) নীতি সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তাঁকে জানাতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই