মেইন ম্যেনু

লারার কাছে মালালার দীক্ষা

একজন ক্রিকেটের সাবেক কিংবদন্তি। ব্যাট হাতে প্রতিপক্ষকে শাসন করতেন যিনি। অন্যজন এই মুহূর্তে বিশ্বের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম। নারী ও শিশু শিক্ষার জন্য লড়াইয়ে উৎসর্গ প্রাণ যিনি। এই ভিন্ন অঙ্গনের দুই মহাতারকার হঠাৎ সাক্ষাৎ হয় ত্রিনিদাদে। ফলে সেখানে অবধারিতভাবে ফিরে আসে ক্রিকেট।

ব্রায়ান লারা ও মালালা ইউসুফজাইয়ে সাক্ষাতে এ রকম ঘটনাই ঘটলো ত্রিনিদাদে। শিক্ষা ও শান্তির প্রচারণায় মালালা এখন লারার দেশ ত্রিনিদাদ ও টোবাগোতে। সুতরাং লারার সঙ্গে সাক্ষাৎ না করে কী আর ফেরা যায়! দেশটির ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি ফর পারফরমিং আর্টসে বক্তব্য দিতে গিয়ে ‘ত্রিনিদাদের রাজপুত্রে’র সঙ্গে দেখা হয়ে গেল পাকিস্তানি মানবাধিকার কর্মীর।

এই অবস্থায় মালালাতে মুগ্ধ লারা পাক অষ্টাদশীকে তো একটা ব্যাটই উপহার দিলেন। ক্রিকেটের সঙ্গে সখ্য থাকা মালালাও উচ্ছ্বসিত হয়ে উঠলেন তাতে। কিংবদন্তির কাছ থেকে অটোগ্রাফ সংবলিত ব্যাট উপহার পেয়ে পোজ দিলেন ব্যাট হাতে। যেন ক্রিকেটের তালিম নিচ্ছেন। আর বাধভাঙা গলায় বলে উঠলেন, ‘উনি অসাধারণ একজন মানুষ।’ অন্যদিকে নিজের অটোগ্রাফে লারা লিখলেন, ‘মালালা ইউসুফজাইকে- যে বিশ্বের মানুষের কাছে বিরাট এক প্রেরণা।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই