মেইন ম্যেনু

‘র‌্যাব বিলুপ্তির দাবিকারীরা জঙ্গিবাদের দোসর’

নারায়ণগঞ্জের সেভেন মার্ডার ঘটনা উল্লেখ করে যারা র‌্যাবকে বিলুপ্তির দাবি করছে তারা জঙ্গিবাদের দোসর বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা মহানগর আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু শেখ রাসেল শিশু সংসদ আয়োজিত শেখ মুজিবুর রহমানের জামাতা  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম.এ ওয়াজেদ মিয়ার ৫ম মৃত্যুবার্ষিকীর এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির খাজা নিজামুদ্দিন মিলনায়তনে এই সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

কামরুল ইসলাম বলেছেন, বিএনপি-জামায়াতসহ যে সব সুশীল সমাজ র‌্যাবের বিলুপ্তির কথা বলছেন তারা মূলত জঙ্গিবাদের দোসর। তারা চায় না দেশর আইনশৃঙ্খলা ভালো থাকুক।

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত ও সুশীল সমাজ নারায়ণগঞ্জের ঘটনাকে নিয়ে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে তদন্তকাজকে বাধাগ্রস্ত করছে। আমি তাদের অনুরোধ করবো এটাকে নিয়ে জজমিয়ার নাটক সাজাবেন না। একটা বাহিনীর মধ্যে কিছু দুষ্ট লোক থাকতে পারে। সেজন্য পুরো বাহিনীকে দোষারোপ করা যাবে না।’

‘র‌্যাব গঠনে বিভিন্ন সফলতার কথা’ উল্লেখ করে কামরুল ইসলাম বলেন, ‘র‌্যাবকে নিয়ে অনেকে অনেক রটনা রটেছে। কিন্তু এই র‌্যাব জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস দমনসহ বেশ কিছু কাজ সফলতার সঙ্গে করেছে। এ কথা আমাদের ভুলে গেলে চলবে না।’

নারায়ণগঞ্জের ঘটনায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিংবা যে দলের লোক জড়িত থাকুক না কেন, সবার বিচার করা হবে। যে তিনজন র‌্যাব সদস্যের নাম এসেছে, তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ হলে তাদেরও বিচার করা হবে।’

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও শেখ রাসেল শিশু সংসদের কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যাপক ড. সুলতানা শফির সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, আ.লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও পেট্রো বাংলার চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হোসেন মনসুর, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, ঢাকা মহানগর আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই