মেইন ম্যেনু

রামপালবিরোধী হরতালে শাহবাগ, প্রেসক্লাব, মিরপুরে উত্তেজনা

রামপালবিরোধী আধাবেলা হরতালে ঢাকার শাহবাগ, মিরপুর, ও জাতীয় প্রেসক্লাব এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শাহবাগ এলাকায় হরতাল সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এ সময় কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে। এছাড়া মিরপুরে হরতাল সমর্থকরা অবরোধের চেষ্টা করলে সেখানে পুলিশের সঙ্গে সমর্থকদের ধস্তাধস্তি হয়। এ ছাড়া জাতীয় প্রেস ক্লাব এলাকায় অবস্থান নিয়েছে হরতাল সমর্থকরা।

শাহবাগের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানিয়ে ফটো সাংবাদিক ওসমান গনি বলেন, এখানে দফায় দফায় পুলিশ ও হরতাল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জলকামান ও টিয়ারশেল ব্যবহার করছে।

এর আগে সকালে সেখানে সংঘর্ষ শুরু হয়। বিভিন্ন বাম ছাত্র সংগঠনের কর্মীরা বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে টিএসসি মোড় থেকে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শাহবাগের দিকে অগ্রসর হয়ে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। একপর্যায়ে সেখানে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে পুলিশ পিছিয়ে যায় এবং বিক্ষোভকারীরা পুলিশের একটি পিকআপ ভ‌্যানের কাচ ভাঙচুর করে।

বাধা পেয়ে ছাত্রসংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা চারুকলা অনুষদের সমানের রাস্তায় অবস্থান নেন এবং সেখানে টায়ারে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। এরপর থেকে সেখানেই সংঘর্ষ চলছে।

মিরপুরেও হালকা সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে। মিরপুরে এক হরতাল সমর্থক সৈকত মোবাইল ফোনে পরিবর্তন ডটকমকে জানান, মিরপুরে ১২টার দিকে পুলিশ তাদের শান্তিপূর্ণ হরতাল থেকে ধস্তাধস্তি করে উঠিয়ে দিয়েছে। তারা এখন মোড় ছেড়ে কিছু দূরে অবস্থান নিয়েছেন।

প্রেস ক্লাবের সামনে পুলিশের উপস্থিত নেই বললেই চলে। আর হরতাল সমর্থকরা প্রায় শতাধিক। সেখানে ড. আনু মুহাম্মদের নেতৃত্বে সমাবেশের প্রস্তুতি চলছে।

রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আধাবেলা হরতাল কর্মসূচি পালন করছে তেল-গ্যাস, বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ও সমমনা বাম সংগঠনগুলো।






মন্তব্য চালু নেই