মেইন ম্যেনু

দায়িত্ব নেয়ার কয়েক ঘণ্টা পর দুই মেয়র ফের বরখাস্ত

বিশেষ ট্রাইব্যুনালের মামলায় দায়িত্ব নেয়ার তিন ঘন্টা পর আবারও বরখাস্ত হলেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়রের ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

রোববার (২ এপ্রিল) বেলা তিনটার দিকে বুলবুল সিটি করপোরেশনে তাঁর কক্ষে বসেন। এ সময় সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারা ফ্যাক্সে তাঁর সাময়িক বরখাস্তের আদেশ আসে।

এদিকে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের জনসভায় বোমা হামলার ঘটনায় আবারও বরখাস্ত হলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

সাময়িক বরখাস্তের দীর্ঘ ২৩ মাস পর আদালতের রায়ে রাজশাহী সিটি মেয়রের দায়িত্ব নেন বুলবুল।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে দায়িত্ব নিয়ে গিয়ে দেখেন মেয়রের দপ্তরে তালা ঝুলছে। কে বা কারা তালা দিয়েছিল তা জানা যায়নি বলে জানান বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদত হোসেন খান।

ওসি বলেন, সকাল ১০টার দিকে মেয়র বুলবুল নগর ভবনে যান। কিন্তু সেখানে গিয়ে দেখেন মেয়রের দপ্তর তালাবদ্ধ। কিছুক্ষণ অপেক্ষার পরও প্রবেশ করতে না পেরে ওই কক্ষের পাশে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কক্ষে গিয়ে বসেন তিনি। এসময় সেখানে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দুপুর ২টার দিকে পুলিশের সহযোগিতায় সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. শরীফ উদ্দিন তালা ভেঙে মেয়রকে তার দপ্তরে প্রবেশের সুযোগ করে দেন বলে জানান তিনি।

এদিকে মহানগর বিএনপির সভাপতি ও মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের মেয়রের দায়িত্ব নেয়াকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে নগর ভবনের সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। সকাল ১১টার দিকে নগর ভবনে মেয়র বুলবুলের আহ্বান করা সংবাদ সম্মেলন হয়নি। নগর ভবনে দেখা যায়নি দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম-উল-আযীমকেও।

২০১৫ সালে ৭ মে রাসিক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। ২০১৬ সালের ১০ মার্চ উচ্চ আদালত তার বরখাস্ত আদেশ অবৈধ ঘোষণা করেন। গত মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মাহমুদুল আলমের সাক্ষরিত চিঠিতে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নে ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেয়া হয়। এরপরই রোববার দায়িত্ব নিতে নগর ভবনে যান মেয়র বুলবুল।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই