মেইন ম্যেনু

রহস্যময় সুনীল নারিন সম্পর্কে অজানা ৮টি তথ্য

সুনীল নারিন। ওয়েস্ট ইন্ডিসের এই ক্রিকেটার এখন খেলছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে। বোলিং ঝলক দিয়ে বিশ্বের সামনে নিজেকে পরিচিত করালো এখন ব্যাট হাতেও ভেলকি দেখাচ্ছেন। তার সম্পর্কে জেনে নিন এই আটটি তথ্য।

১) ২৬ মে, ১৯৮৮ সালে ‘রহস্যময় স্পিনার’ সুনীল নারিনের জন্ম হয় ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর অরিমাতে। সাত বছর বয়সে ক্রিকেটে হাতেখড়ি হয় ক্যারিবিয়ান স্পিনারের।

২) নারিনের বাবা সামান্য ট্যাক্সি চালক ছিলেন। সুনীল গাভাস্কারের বড় ভক্ত ছিলেন নারিনের বাবা। সেই কারণেই ছেলেরও নাম রাখেন সুনীল। ভারতের কিংবদন্তি ওপেনারের এতটাই ভক্ত ছিলেন নারিনের বাবা যে নিজের মেয়ের নাম রাখতে চেয়েছিলেন গাভাস্কারের নামে। স্ত্রী ক্রিশ্চিনা তা পছন্দ করেননি। সুনীল নারিনের ক্রিকেটের প্রতি ভালবাসা প্রথম লক্ষ্য করেন বাবাই। তার হাত ধরেই সুনীল নারিন কুইন্স পার্ক সাভানায় অনুশীলন করতে আসতেন ছেলেবেলায়।

৩) তখন সুনীল গাভাস্কার পূজিত হতেন ভারতে। সুনীল নারিনের বাবা এতটাই গাভাস্কার-ভক্ত ছিলেন যে, সেই সময়ে ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ চলাকালীন ক্যারিবিয়ানদের সাপোর্ট না করে ‘লিটল মাস্টার’-এর হয়ে গলা ফাটাতেন তিনি।

৪) বার্নার্ড জুলিয়েন, স্যামি গুইলেন ও রোল্যান্ড সম্পৎ আবিষ্কার করেন সুনীল নারিনকে। নারিনের ভিতরে যে প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছে, তা নজর এড়ায়নি এই তিন কোচের।

৫) ২০০৯ সালে নজর কাড়েন নারিন। একটি ট্রায়াল ম্যাচে নারিন একাই একটি ইনিংসে দশ উইকেট তুলে নেন। ওই ম্যাচে নারিনের বোলিং ফিগার ছিল ১০-৫৫। সেই ম্যাচের পারফরম্যান্সের জন্যই ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোব্যাগো দলে সুযোগ পান নারিন।

৬) একই ওভারে ছ’ রকমের ডেলিভারি করতে পারেন নারিন। ক্যারম বল, নাকল পুশেস এবং স্কিডার্স ক্যারিবিয়ান স্পিনারের আসল অস্ত্র। ব্যাটসম্যানরা নারিনের এই অস্ত্র এখনও বুঝে উঠতে পারেননি।

৭) ২০১৩ সালে নন্দিতা কুমারকে হিন্দু শাস্ত্রমতে বিয়ে করেন নারিন।

৮) এখন কেকেআর-এর হয়ে ব্যাটিং ওপেন করছেন নারিন। বিগ ব্যাশ খেলার সময়ে মেলবোর্ন রেনিগেডস-এর হয়ে ওপেন করেছিলেন নারিন। তার মধ্যে ব্যাটিং দক্ষতা লক্ষ্য করেই কেকেআর ম্যানেজেমেন্ট ওপেন করতে পাঠাচ্ছেন নারিনকে।






মন্তব্য চালু নেই