মেইন ম্যেনু

যে মুসলিম দেশে দুইজন ফার্স্ট লেডি

রাজনৈতিক সংকটে উত্তপ্ত হলেও পশ্চিম অাফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া পেয়েছে দুইজন ফার্স্ট লেডি। দেশটির নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট আদামা বারৌর দুইজন স্ত্রীকে ফার্স্ট লেডি উপাধি দেয়া হয়েছে।

যদিও দেশের টালমাটাল অবস্থায় আদামা বারৌ গাম্বিয়াতে ঢুকতে পারেননি। প্রতিবেশী দেশ সোমালিয়ায় রয়েছেন তিনি। সেখান থেকেই দুই স্ত্রীর ছবি দিয়ে টুইট করেন।

শুক্রবার সোমালিয়ার রাজধানী ডাকার শহরের গাম্বিয়া দূতাবাসেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন বারৌ।

গাম্বিয়ার একনায়ক ইয়াহিয়া জামেহ আন্তর্জাতিক চাপে শেষ পর্যন্ত ক্ষমতা ছাড়তে রাজি হয়েছেন। শুক্রবার গাম্বিয়ায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সামরিক অভিযান চালায় সেনেগাল সরকার। তাদের সমর্থন করে জাতিসংঘ ও আফ্রিকান ইউনিয়ন।

অার সোমালিয়ার সেনাবাহিনীও অবস্থান করছে গাম্বিয়ার রাজধানী বানজুলে। পাশাপাশি গাম্বিয়ার উপকূল এলাকায় রয়েছে নাইজেরিয়ার নৌবাহিনী।

শুক্রবার সারাদিনই উত্তপ্ত ছিল গাম্বিয়া। নির্বাচনে হেরে গিয়েও কিছুতেই গদি ছাড়বেন না বলে হুঙ্কার দিয়েছিলেন একনায়ক ইয়হিয়া জামেহ। গত ২২ বছর তিনি দেশের ক্ষমতায় ছিলেন। ১৯৯৪ সালে এক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে তিনি ক্ষমতায় এসেছিলেন।

তবে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে দেশে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করাতে বাধ্য হন। জারি করেন জরুরি অবস্থা। নির্বাচনে হেরে গিয়েই ক্ষমতা ছাড়তে অস্বীকৃতি জানান ইয়াহিয়া জামেহ। অগত্যা প্রতিবেশী সেনেগাল সরকার গাম্বিয়ার রাজনীতিতে হস্তক্ষেপ করে।






মন্তব্য চালু নেই